বিনোদনসাক্ষাৎকার

আমার চোখে এ যেন অন্য শাকিব খান- শাহাদাৎ হোসেন লিটন

[১২ জানুয়ারি থেকে এফডিসির কড়ই তলাতে সেট বানিয়ে শাহাদাৎ হোসেন লিটন পরিচালিত শাকিব খান অভিনীত “অহংকার” সিনেমার শুটিং। দীর্ঘদিন কোলকাতা থেকে ফিরে এসে সেই সকাল ৭টায় শুটিং এ হাজির হওয়া থেকে সকল কাজেই নিয়মিত হয়েছেন বাংলাদেশের হার্ট থ্রব হিরো শাকিব খান। আবার নিজ দায়ীত্বে ক্যামেরার সামনে হাজির হচ্ছেন। যাওয়ার সময় হলেও তারপরেও নিজে দায়ীত্ব থেকে আবার শুটিংয়ের সকল বাকি কাজ গুলো করে দিচ্ছেন। সব কিছু নিয়ে খুশি থাকা পরিচালকের সাথে কথা বলেছেন -আকাশ নিবির।]

সব মিলিয়ে শাকিব খান কে নিয়ে কেমন শুটিং করছেন?
খুবই ভাল! আমার তো বিশ্বাসই হচ্ছে না। আসলেই এটা কি আমাদের আগের শাকিব খান। সেই সকাল ৭টায় এসে সেটে এসে হাজির! আর ঠিক ৮টার মধ্যেই ক্যামেরা চালু করতে বলছেন। আবার কোন শর্ট এনজি হলেও, বলার সাথে সাথে দ্বিতীয় তা করে দিচ্ছেন।

আপনি বলতে চাচ্ছেন শাকিব খান, ঠিক আগের মতই কাজে ফিরছে?
কাজে ফিরছে তা কিন্তু আপনি নিজেই দেখছেন। আর আপনার সামনেই তো তিনবার এনজি শর্টটি করে দিল। আসলে আমি বলতে চাচ্ছি, আমি এ পর্যন্ত শাকিব খানের সাথে যত সিনেমাতে কাজ করেছি এমন শাকিব খানকে খুঁজে পাইনাই। আমার কাছে মনে হল শাকিব যদি এ ভাবে কাজগুলো করতে থাকে তাহলে আর কারও কোন সমস্যা হওয়ার কথা নয়।

মাঝপথে কিন্তু হঠাৎ শাকিব খান দুই দিনের জন্য কোলকাতাতে পারি জমিয়ে ছিল?
প্রথমেএকটু চিন্তিত ছিলাম। বিষয়টা কিন্তু আমি জানতাম, আমাকে বলেই কোলকাতাতে পারি জমিয়ে ছিল। সে আমাকে আগেই জানিয়েছিল দুই দিনের কথা। আপনি কিন্তু দুই পরই তাকে সেট শুটিং করতে দেখছেন। শাকিব খান তাঁর নিজের কথা রেখেছে। আমার কাছে এ বিষটা বেশ ভাল লেগেছে।

শাকিব খান আপনাকে “অহংকার” এর জন্য টানা কত তারিখ পর্যন্ত সিডিউল দিয়েছেন?
হাহাহা! এটা আসলে খুব মজার একটা প্রশ্ন! কোন তারিখের সিডিউল নেয়া হয় নায়। যতদিন পর্যন্ত “অহংকার” সিনেমার কাজ শেষ না হবে, ঠিক ততদিন তার ধারাবাহিকতাভাবে কাজ চলতেই তাকবে। আজ কিন্তু শাকিবের একটা ব্যাপারে সত্যি আমি আপসেট! আজ কথা ছিল সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত শুটিং করার। কিন্তু এখন রাত ৯টা! তবুও কাজ শেষ না করে, সে নিজেই আর যাচ্ছে না।

“অহংকার” এর গানের শুটিং কি দেশের বাইরে করবেন? নাকি দেশেই করবেন?
অবশ্যই দেশে করবো। ঢাকার আশে পাশে এবং বিভিন্ন জেলায় জেলায় ঘুড়ে ফিরেই করবো। সব সিনেমার গান কি বিদেশেই গিয়ে করতে হবে। আমাদের দেশে কি ভালো লোকেশন নাই। বিদেশের মানুষ যদি আমাদের দেশকে পর্যটন দেশ হিসেবে ঘুড়ে যেতে পারে। তাহলে আমাদের দেশে গান করতে সমস্য কোথায়।

গল্প কি? হিরো শাকিব খানের “অহংকার”! নাকি হিরোইন বুবলির “অহংকার”?
আপনাদের কথার সাথে কোন দিনও পারবো নাহ্ সেটা আমি জানি! শুধু একটি কথায় বলবো। ছেলেদের কোন দিনও “অহংকার” থাকে না। আর বাকি সব দর্শক হলে গিয়েই দেখবে। সব বলে দিলে তো আর দর্শক হলে গিয়ে দেখবে না। তবে একটা কথা বলতে পারি, দর্শক মনোযোগ সহকারেই গল্পটি হলে গিয়েই দেখবে। আপনিও হলে গিয়েই দেখবেন। হাহাহা

অনেকেই বলে ফেলছেন “অহংকার” সিনেমা একটি নকল গল্প?
সবে সিনেমাটির ৪ দিন শুটিং করলাম! আর তাতেই অনেকেই গল্পের নকল বুঝে গেল! আগে সিনেমাটা শেষতো করি। তারপর না হয় আসল আর নকল দেখা যাবে। এখন কথা রাখেন, আগে নাস্তাটা তো করে নিবেন?

 


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন