মুক্তমতলাইফষ্টাইল

‘মেঘের রাজ্য নীলাচল’

মুনমুন বড়ুয়া চৌধুরী : সামনে ঈদ। চলছে ঈদের প্রস্ততি। হাতে রয়েছে বেশ কয়েকটা দিন ছুটি। সারা সপ্তাহ জুড়ে ব্যস্ততম অফিসের পরে হয়ত কোথাও বেড়িয়ে আসা যায় না পরিবারকে নিয়ে। ঈদের ছুটিকে সাথে নিয়ে সকলেই চাই একান্ত পরাবারকে সংগে নিয়ে কিছুটা আনন্দঘন পরিবেশে সময় কাটাতে। এমনি একটি স্থানের নাম নীলাচল। যাকে বাংলার দাজিলিং বলা হয়। যেহেতু বাংলার দাজিলিং বলা হয়, সেহেতু এরূপ নামকরণ থেকে বুঝা যায় এই নীলাচলের অপরূপ সৌন্দর্যের গুরুত্বের অবস্থান। এই ঈদে ঘুরে আসতে পারেন মেঘের রাজ্য নীলাচলে।
প্রাকৃতিক সৌন্দর্যেরর অবারিত সবুজের সমারোহ ও মেঘ ছুঁতে পাররেন নীলাচলে।

নীলাচল বাংলাদেশের বান্দরবান জেলার অন্যতম দর্শনীয় স্থান। নীলাচল পর্যটন কমপ্লেক্সটি বান্দরবান জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধায়নে বান্দরবানের মূল শহর থেকে প্রায় ছয় কিলোমিটার দূরে টাইগারপাড়ার চূড়ায় গড়ে তোলা হয়েছে। এটি বান্দরবানের আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র। এখানে রয়েছে শুভ্রনীলা, ঝুলন্ত নীলা, নীহারিকা এবং ভ্যালেন্টাইন পয়েন্ট নামে পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় বিশ্রামাগার। তাছাড়া রয়েছে শিশুদের জন্য খেলাধূলার ব্যবস্হা এবং বসার মনোরম পরিবেশ।

নীলাচলে বসে পাহাড়ে মন মাতানো মনোরম দৃশ্য দেখতে যাবার জন্য প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের ঢল নামে। নীলাচলের বুকে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১৬শ’ ফুট উঁচু এই জায়গা থেকে মেঘকে ছোঁয়া যায় অবলীলায়। সমগ্র বান্দরবান শহরকে এই পাহাড় চূড়া থেকে দেখা যায় এক নজরে। এমন মন মাতানো প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য দেখার জন্য পরিবার অথবা বন্ধু মহলকে নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন এই ঈদে। ঈদ হোক আনন্দময়। শুভেচ্ছা সকলের জন্য।

 

জেড/আর


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন