বিনোদন

বাপ্পি আসমানীকে খুঁজতে এখন ঢাকায়

বিনোদন ডেস্ক : পল্লীকবি জসিম উদ্দিনের “আসমানি” কবিতার ছায়া অবলম্বনে এম এ সাখাওয়াত হোসেন নির্মাণ করছেন “আসমানি”শিরোনামে একটি চলচ্চিত্র।

এতে প্রথমবারের মত জুটি বেধেঁ অভিনয় করছেন এই সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক বাপ্পী চৌধুরী ও নবাগত অভিনেত্রী সুস্নি রহমান।
ছোটবেলা থেকে একই সঙ্গে বড় হয়েছেন বাপ্পী ও সুস্মি। বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদের সম্পর্কটা বন্ধুত্বে রূপ নেয়। হঠাৎ করে সুস্মি চলে আসে ঢাকায়। তার আগে সুস্মিকে ভালোবেসে ফেলেন বাপ্পী। ঢাকায় গিয়েও দেখা হয় না বাপ্পীর সঙ্গে সুস্মির।

একটা সময় জানা যাবে, সুস্মি আছেন গাইবান্ধার রসুলপুর গ্রামে। ভালোবাসার মানুষকে খুঁজতে রসুলপুর যান বাপ্পী। ‘আসমানি’ ছবির গল্প সম্পর্কে এভাবেই আগাম ধারণা দিলেন পরিচালক এম শাখাওয়াত হোসেন। এ ছবিতে সুস্মি অভিনয় করছেন ‘আসমানি’ চরিত্রে।
তিন মাস পর আজ (বুধবার) থেকে রাজধানীর প্রিয়াঙ্কা শুটিং হাউজে শুরু হয়েছে ‘আসমানি’ ছবির শুটিং। নির্মাতা শাখাওয়াত হোসেন, ‘আজ এবং আগামীকাল (বৃহস্পতিবার) এই দু’দিন শুটিং করলেই দৃশ্যের কাজ সব শেষ হবে। বাকি থাকবে শুধু দুটি গানের শুটিং। তার আগে ডাবিং এবং পোস্ট প্রডাকশনের কাজ শেষ হবে। এটি আমার প্রথম ছবি। সেজন্য অনেক যত্ন নিয়ে ছবিটি নির্মাণ করছি। বাকিটা দর্শকরা বিচার করবেন।‘
বাপ্পি চৌধুরী বলেন, ‘ভালোবাসার মানুষকে খোঁজার পাশাপাশি একটা গ্রামের ছেলের সংগ্রাম এ ছবিতে তুলে ধরা হয়েছে। গতানুগতিক গল্পের কোনো ছবি নয় আসমানি। শুটিং করে আমি যেমনটা আনন্দ পাচ্ছি, আমার বিশ্বাস দর্শকরা দারুণ গল্পের একটা ছবি দেখতে পাবেন। তাছাড়া আমি চেষ্টা করছি নিজেকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন করতে।‘ সিনেমাটির গল্প দারুণ দর্শক দেখে আনন্দ পাবেন বলে আশা করছি।’’
সুস্মি বলেন, বাপ্পী চৌধুরী ও আমি প্রথমবারের মত জুটি বেধেঁ এ ছবিতে অভিনয় করছি।ছবিতে আমি অভিনয় করছি তিনটি নামের চরিত্রে ‘আসমানি’চাঁদ মুখি ও পুষ্প।আমরা কাজটা মনযোগ সহকারে করার চেষ্টা করেছি।বাকিটা দর্শকরা বিচার করবেন।
এর আগে গাইবান্ধা ও ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে ‘আসমানি’ ছবির শুটিং করা হয়। আগামী বছর ছবিটি মুক্তি পাবে বলে জানান এর কাহিনি, চিত্রনাট্যকার ও পরিচালক এম শাখাওয়াত হোসেন। ‘আসমানি’ ছবির মাধ্যমে প্রথমবার বড় পর্দায় কাজ করছেন সুস্মি রহমান। এর আগে তিনি মুঠোফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোনে মডেল হিসেবে পরিচিতি পেয়েছেন।আগামী বছর ছবিটি মুক্তি পাবে বলে জানান পরিচালক এম এ শাখাওয়াত হোসেন।

 

 

দেশ রিপোর্ট / আর


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন