বিনোদন

আসছে সুলতান সুলেমান: কোসেম

সুলতান সুলেমানের পরবর্তী ধারাবাহিক সুলতান সুলেমান: কোসেম। সুলতান সুলেমানের দৌহিত্র সুলতান ৩য় মুরাদের যোগ্য উত্তরসূরি, তার দৌহিত্র্য সুলতান আহমেদ ও তার সন্তানদের রাজত্বকালকে কেন্দ্র করে নির্মিত তুরস্কের এই জনপ্রিয় মেগাসিরিয়াল।

সুলতান আহমেদ অল্প বয়সে ক্ষমতালাভ ও ভাইহত্যা নিষিদ্ধ করণের ফলে ঐতিহাসিকভাবে বিতর্কিত ও বিখ্যাত। তার মহানুভবতা, ক্ষমাশীল দৃষ্টিভঙ্গি, ন্যায়বিচার তাকে স্মরণীয় করে তোলে। কাহিনীর চিত্রায়নে আমরা দেখতে পাই তার এই ঔদার্য্যের পেছনে পরোক্ষভাবে রয়েছে তার সহধর্মিণীর প্রভাব।

হুররাম সুলতানের পর অটোম্যান সাম্রাজ্যের অন্যতম মহিয়সী নারী হয়ে উঠে সুলতান আহমেদের সহধর্মিণী “কোসেম সুলতান”। এক সাধারণ গ্রীক বণিকের কোমলমতি মেয়ে “আনাস্তাসিয়া” যে পরবর্তীতে “মাহপেইকার” এবং সর্বশেষ “কোসেম” উপাধি লাভ করে, যে কিনা হুররাম সুলতানের মতই বারবার প্রাসাদ ষড়যন্ত্রের শিকার হয় এবং সর্বশেষ পিতার হত্যার প্রতিশোধ নিতে গিয়ে নিজেকে শক্তিমান করে তোলে। ধীরে ধীরে কোসেম সুলতান এতটাই প্রভাবশালী হয়ে উঠে যে হুররাম সুলতানের মত লুকিয়ে নয় বরং প্রকাশ্যে সাম্রাজ্যের নানা বিষয়াদি নিজের নিয়ন্ত্রণে রাখে। এক পর্যায়ে কোসেমই সাম্রাজ্য পরিচালনা করে।

কাহিনীতে তার পথের বাধা হয়ে দাঁড়ায় সুলতান ৩য় মুরাদের স্ত্রী আরেক ক্ষমতাধর সাম্রাজ্ঞী সাফিয়ে সুলতান। সুলতান সুলেমানের শেষের দিকে এই চরিত্রটির উপস্থিতি বিদ্যমান। সুলতান আহমেদের প্রতি উজির-এ-আযম দারভিশ পাশার পিতৃসুলভ আচরণ এবং আহমেদের মা হানদান সুলতানের সাথে তাঁর গোপন সম্পর্ক কাহিনীতে এক ভিন্ন মাত্রা যোগ করে। যা আহমেদের পিতা সুলতান মেহমেদের অকাল মৃত্যুকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। এদিকে সুলতান আহমেদের সৎ মা হালিমে সুলতান নিজ সন্তান মুস্তাফাকে সিংহাসনে বসানোর প্রয়াস চালায় এবং বারবার কোসেম ও সুলতান আহমেদের সামনে নতুন বাধা সৃষ্টি করে।

এছাড়া চিত্রিত হয়েছে সাফিয়ে সুলতানের কন্যা শাহাজাদি ফারিয়ার সাথে, পরবর্তীতে ক্রিমিয়ার খান (রাজা) মেহমেদ গিরায়ের প্রেম- প্রতারণা ও বিশ্বাসঘাতকতার চিত্র, যার সাথে জড়িয়ে থাকে কোসেমের জয়-পরাজয়ের গল্প। ভাইহত্যা, প্রাসাদ চক্রান্ত, যুদ্ধ-বিগ্রহ, রাজ্যজয়, অস্থিতিশীল রাজনৈতিক ঘটনা, ক্ষমতার দ্বন্দ্ব ও লড়াই এই সিরিয়ালের উপজীব্য বিষয়। কাহিনীর পট পরিবর্তনে প্রতিনিয়ত দর্শকের মনে জেগে উঠে নানান প্রশ্ন।

তাই আবারো উৎসুক দর্শকদের প্রশ্নবাণে জর্জরিত করতে এই চমৎকার নির্মানশৈলী বাংলা ভাষায় উপস্থাপন করতে যাচ্ছে দীপ্ত টিভি।

আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে দিপ্ত টিভিতে রাত ৭টা ৩০মিনিট এবং রাত ১০টায় প্রচার হবে।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন