আইন-আদালতজাতীয়প্রধান সংবাদরাজনীতি

খালেদা জিয়াকে কারাগারে ডিভিশন সুবিধা

আদালতের নির্দেশনার পর বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে কারাগারে ডিভিশন সুবিধা দেয়া হয়েছে। গতকাল বিকাল ৪টার দিকে ডিভিশন প্রদানের জন্য আদালতের নির্দেশনার কপি কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছানোর পর তাকে এ সুবিধা দেয়া হয়।

সন্ধ্যায় কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন জানান, আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক খালেদা জিয়াকে কারাবিধি মেনেই ডিভিশন (সামাজিক মর্যাদা অনুযায়ী প্রথম শ্রেণীর সুবিধা) দেয়া হচ্ছে।

এর আগে সকাল ১০টায় খালেদা জিয়ার পক্ষে ডিভিশনের আবেদন করা হয়। বেলা সোয়া ১১টায় ওই আবেদনের ওপর ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালতে শুনানি হয়। খালেদা জিয়ার পক্ষে অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, আমিনুল ইসলাম ও জাকির হোসেন ভুইয়া শুনানি করেন। দুদকের পক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর মোশারফ হোসেন কাজল।

খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানিতে অংশ নিয়ে আইনজীবীরা বলেন, কারাবিধি ও বাংলাদেশ সরকারের ওয়ারেন্ট অব প্রিসিডেন্স অনুযায়ী দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি খালেদা জিয়া কারাগারে ডিভিশন-১ পাওয়ার যোগ্য। ওয়ারেন্ট অব প্রিসিডেন্স অনুযায়ী সাবেক প্রধানমন্ত্রী, সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির চেয়ারপারসন— এ তিন ক্যাটাগরিতেই তিনি ডিভিশন-১ পাওয়ার যোগ্য। আদালত সরাসরি এ ডিভিশন প্রদানের আদেশ দিতে পারেন।

ডিভিশনের বিষয়ে শুনানির আগে আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া রায়ের অনুলিপি প্রদানের আবেদন করে বলেন, আদালত যদি আজ (রোববার) আমাদের রায়ের অনুলিপি দেন, তবে আমরা আগামীকাল (সোমবার) আপিল করতে পারতাম। প্রয়োজনে আদালত রায়ের ফটোকপির অনুলিপিও প্রদান করতে পারেন। ওই সময় আইনজীবী আমিনুল ইসলাম বলেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৩৭১ ধারায় বলা হয়েছে, রায়ের অনুলিপি অবিলম্বে দিতে হবে। আমরা একটু দ্রুত চাই।

বিচারক দুদকের আইনজীবীর বক্তব্য জানতে চাইলে মোশারফ হোসেন কাজল বলেন, আদালত সরাসরি ডিভিশন প্রদানের কোনো আদেশ দিতে পারেন না। আসামি ডিভিশন পাবেন কিনা এ বিষয়ে কারাবিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিতে পারেন।

উভয় পক্ষের শুনানি শেষে বিচারক কারাবিধি অনুযায়ী খালেদা জিয়াকে কারাগারে ডিভিশন প্রদানের জন্য কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। তবে রায়ের অনুলিপি কখন পাওয়া যাবে এ সম্পর্কে বিচারক কোনো কথা বলেননি।

৮ ফেব্রুয়ারি একই বিচারক জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন। একই সঙ্গে তার জামিন বাতিল করে সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। ওইদিনই তাকে নাজিম উদ্দিন রোডের কারাগারে নেয়া হয়। বর্তমানে তিনি ওই কারাগারেই আছেন।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন