আজব দুনিয়া

৪৩ বছর পর ‘মধুর প্রতিশোধ’ নিলেন পা হারানো সেই পর্বতারোহী

আজ থেকে তেতাল্লিশ বছর আগে এভারেস্টের চূড়ায় উঠতে গিয়ে ফ্রস্ট বাইটে (প্রচণ্ড ঠাণ্ডা) আক্রান্ত হয়ে নিজের দুটো পা-ই হারিয়েছিলেন ২৯ বছর বয়সী যুবক শিয়া বোউ। সাধারণত পা হারানোর পর ফের কেউ এভারেস্ট জয়ের স্বপ্ন দেখতে পারেন না। কিন্তু শিয়া বোউ দেখেছিলেন। অবশেষে কৃত্রিম পা নিয়ে ৪৩ বছর পর এভারেস্টের চূড়ায় উঠে মধুর প্রতিশোধ নিয়েছেন তিনি।

দুই পা হারিয়ে যে কারো আশাহত হওয়ার কথা কিন্তু শিউবো যে অন্য ধাতুতে তৈরি। পা হারানোর পর অন্যরকম জেদ চেপে বসে তার মনে। এভারেস্ট জয়ের স্বপ্ন পূরণে তিনি আর পিছপা হননি। নকল পা দিয়ে চালিয়ে গেছেন অধ্যাবসায়। অবশেষে ৬৯ বছর বয়সে এভারেস্টের চূড়ায় ওঠেন শিউবো। চীনা এই পর্বতারোহী ২৯ হাজার ২৯ ফুট উচ্চতা অতিক্রম করে এভারেস্টের চূড়ায় পৌঁছেন।

পা হারিয়েছেন এমন কোন ব্যক্তির এভারেস্টের চূড়ায় ওঠার এটি একটি রেকর্ড। এর আগে দুই পা নেই এমন কেউ নেপালের দিক থেকে এভারেস্টের চূড়ায় উঠতে পারেননি। তবে ২০০৬ সালে দুই পা হারানো পর্বতারোহী নিউজিল্যান্ড নিবাসী মার্ক ইঙ্গলিস এভারেস্টের সর্বোচ্চ চূড়ার ঘ্রাণ নিয়েছিলেন তিব্বতের দিক থেকে।

জানা গেছে, ১৯৭৫ সাল থেকে শিয়া বোউ নামের হার না মানা এই পর্বতারোহী এভারেস্টে ওঠার চেষ্টা করে যাচ্ছিলেন। এরপর ২০১৬ সালে নেপালের সরকার দুই-পা কাটা এবং অন্ধদের জন্য এভারেস্টে ওঠা নিষিদ্ধ করে। তখন চরম হতাশায় পড়েছিলেন শিয়া বৌউ। তবে চলতি বছরের মার্চে নেপালের সুপ্রিম কোর্ট ওই নিষেধাজ্ঞা বেআইনি ঘোষণা করে। এরপর গত এপ্রিলে নকল পা দিয়ে তিনি পঞ্চম বারের মত এভারেস্ট জয়ের অভিযানে নামেন।

বার্তা সংস্থা এএফপিকে এই পর্বতারোহী বলেন, ‘এভারেস্টের চূড়ায় উঠে নিশ্বাস নিবো এটিই আমার স্বপ্ন। ব্যক্তিগতভাবে এটা আমার অন্যতম একটা চ্যালেঞ্জ, আমার দুর্ভাগ্যের বিরুদ্ধে আমার চ্যালেঞ্জ।’ শেষ পর্যন্ত ১৪ই মে ২০১৮ তিনি সফল হলেন।

প্রসঙ্গত, শিয়া বোউ ১৯৭৫ সালে প্রথমবারের মতো এভারেস্ট জয়ের অভিযানে গিয়ে চূড়ার কাছাকাছি পৌঁছে ফ্রস্ট-বাইটে আক্রান্ত হন। এরপর ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে সেই অসুস্থতার জেরেই ১৯৯৬ সালে হাঁটুর নীচ থেকে তার দুই পা কেটে ফেলা হয়। এরপর আরো দুইবার চেষ্টা করেন। সর্বশেষ ২০১৮ সালে এসে শারীরিক প্রতিবন্ধকতার বিরুদ্ধে লড়াই করে বিশ্ববাসীকে যেন এক নতুন বার্তাই দিলেন তিনি।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন