সারাদেশ

ঈদের কেনাকাটার কথা বলে কিশোরীকে ধর্ষণ

ঈদের কেনাকাটার কথা বলে এক কিশোরীকে কিশোরগঞ্জ থেকে পাকুন্দিয়ায় নিয়ে গণধর্ষণ করেছে বখাটেরা। এ ঘটনায় মেয়েটির প্রেমিকসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে প্রতিবন্ধী এক তরুণী ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। গাইবান্ধার সাঘাটায় ধর্ষণের শিকার হয়েছে এক শিশু। অন্যদিকে খুলনায় এক ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় দুই ধর্ষকের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ব্যুরো, অফিস ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

কিশোরগঞ্জ : ঈদের কেনাকাটার কথা বলে কিশোরগঞ্জের এক কিশোরীকে (১৫) পাকুন্দিয়ায় নিয়ে গণধর্ষণ করেছে কপট প্রেমিক ও তার চার সহযোগী। গণধর্ষণের শিকার কিশোরীকে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বিষয়টি জানার পরই অভিযান চালিয়ে ঘটনায় জড়িত প্রেমিক বাদশা মিয়াসহ (২৫) তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গ্রেফতার অন্য দু’জনের নাম এরশাদ (২৫) ও রুস্তম (২১)। গতকাল মঙ্গলবার র‌্যাবের একটি বিশেষ দল পাকুন্দিয়া উপজেলার শালংকায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে গ্রেফতার হওয়া তিন ধর্ষকসহ মোট পাঁচজনকে আসামি করে মঙ্গলবার দুপুরে পাকুন্দিয়া থানায় মামলা করেছেন। মামলার অন্য দুই আসামি হচ্ছে- নাছিম (২২) ও মামুন (৩০)। পাঁচ ধর্ষকের মধ্যে প্রেমিক বাদশা, এরশাদ, রুস্তম ও নাছিম পাকুন্দিয়া উপজেলার শালংকা গ্রামের এবং মামুন ছোট আজলদী গ্রামের বাসিন্দা।

পরিবার ও স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার মারিয়া এলাকার ওই কিশোরীর সঙ্গে মাস খানেক আগে মোবাইল ফোনে বাদশা মিয়ার পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। শনিবার বিকেলে বাদশা মোবাইল ফোনে কিশোরীকে ঈদের কেনাকাটা করে দেওয়ার কথা বলে পাকুন্দিয়া নিয়ে গিয়ে আরও ৪ বন্ধুসহ ধর্ষণ করে।

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) : যৌন নিপীড়নের শিকার প্রতিবন্ধী এক তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে। প্রতিবন্ধী তরুণীকে নির্যাতনের ঘটনায় পুলিশ মূল অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে। গতকাল মঙ্গলবার অভিযুক্ত ব্যক্তি ময়মনসিংহ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের একটি গ্রামের প্রতিবন্ধী তরুণী গাজীপুরে ভিক্ষা করত। গাজীপুরের নতুন বাজার এলাকায় ওষুধের দোকানে সাহায্য চাইতে গিয়ে কয়েক মাস আগে নির্যাতনের শিকার হয় প্রতিবন্ধী ওই তরুণী। গাজীপুরের বারবৈকা গ্রামের লিয়াকত আলীর ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩০) প্রতিবন্ধী তরুণীর ওপর নির্যাতন চলায়।

সোমবার গ্রেফতারের পর সাইফুল ইসলামকে ময়মনসিংহ আদালতে হাজির করা হলে সে নির্যাতনের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

সাঘাটা (গাইবান্ধা) : গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার পুটিমারী গ্রামে চকলেট কিনে দিয়ে লোভ দেখিয়ে শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ধর্ষককে আটক করেছে সাঘাটা থানা পুলিশ।

সাঘাটা থানা ও স্থানীয়রা জানায়, গত সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার পুটিমারী গ্রামে ওই শিশুকে পার্শ্ববর্তী বাঁশহাটা গ্রামের আবদুর রউফ (৪৫) চকলেট কিনে দিয়ে লোভ দেখিয়ে বালুচর নামকস্থানে নিয়ে ধর্ষণ করে। আবদুর রউফকে আটক করে গতকাল মঙ্গলবার গাইবান্ধা জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

খুলনা : খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গা এলাকায় পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার দুই আসামি রাজু ও টুটুলের একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল মঙ্গলবার খুলনার মহানগর হাকিম মো. শাহীদুল ইসলাম এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সোনাডাঙ্গা মডেল থানার এসআই দিপক কুমার পাল জানান, গ্রেফতার তিন ধর্ষক টুটুল শেখ, রাজু শেখ ও আবির শেখকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়। আদালত টুটুল ও রাজুর একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। আবিরের রিমান্ড শুনানি বাতিল করে দিয়েছেন।

বেশ কিছু দিন আগে পঞ্চম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে ওই তিন ধর্ষক। সেই ভিডিও ধারণ করে ফের ধর্ষণ করা হয় শিশুটিকে। উপায় না পেয়ে ৩ জুন গায়ে কেরোসিন ঢেলে আত্মহত্যার চেষ্টা করে শিশুটি। এখন পোড়া শরীর নিয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে কাতরাচ্ছে শিশুটি।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন