অর্থনীতি

ঈদে নিরবচ্ছিন্ন এটিএম ও মোবাইল ব্যাংকিং সেবা দিতে হবে

আসন্ন ঈদুল ফিতরের ছুটিতে এটিএম বুথ ও মোবাইলে ব্যাংকিং লেনদেনে নিরবচ্ছিন্ন সেবা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এ ছাড়া পয়েন্ট অব সেলস (পস) ও অনলাইন ই-পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে দেওয়া সেবায়ও যাতে কোনো প্রকার বিঘ্ন না ঘটে তার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসব লেনদেনে গ্রাহকদের সতর্কতা অবলম্বনের জন্য গণমাধ্যমে প্রচারণার ব্যবস্থা করতেও ব্যাংকগুলোকে বলা হয়েছে। কোনো অবস্থাতে গ্রাহক যেন হয়রানির শিকার না হন সে বিষয়ে ব্যাংকগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে। নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সোমবার এ-সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়।

সাধারণভাবে প্রতি বছর ঈদের আগে ব্যাংকগুলোকে এসব বিষয়ে সতর্ক করে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে কার্ডভিত্তিক লেনদেন ব্যাপক বৃদ্ধির ফলে বাড়তি সতর্কতা নেওয়া হচ্ছে। কোনো কোনো ঈদের বন্ধের মধ্যে এটিএম বুথে টাকা না পাওয়ার ঘটনা ঘটে। তবে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ব্যাপক কড়াকড়ি এবং ব্যাংকগুলোর প্রতিযোগিতার ফলে কয়েক বছর ধরে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলারে বলা হয়েছে, সার্বক্ষণিক এটিএম সেবা নিশ্চিত করতে হবে। এটিএম বুথে কোনো ধরনের কারিগরি ত্রুটি দেখা দিলে দ্রুততম সময়ে তা সমাধান করতে হবে। টাকা তুলতে এসে কোনো গ্রাহক যেন ফেরত না যান সে জন্য বুথে পর্যাপ্ত টাকা সরবরাহ নিশ্চিত করতে হবে। এ ছাড়া নিরাপত্তার স্বার্থে সার্বক্ষণিক পাহারাদারদের সতর্ক অবস্থানসহ অন্যান্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। পয়েন্ট অব সেলসে সার্বক্ষণিক সেবা নিশ্চিত এবং জাল-জালিয়াতি রোধে মার্চেন্ট এবং গ্রাহককে সচেতন করতে বলা হয়েছে। ই-পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে লেনদেনের ক্ষেত্রে দুইস্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা (টু এফএ) ব্যবস্থা চালু রাখতে হবে। সব ব্যাংক ও সাবসিডিয়ারি কোম্পানির মাধ্যমে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের সেবা নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে।

সার্কুলারে আরও বলা হয়েছে, এসব সেবার আওতায় যে কোনো অঙ্কের লেনদেনের তথ্য এসএমএস অ্যালার্ট সার্ভিসের মাধ্যমে গ্রাহককে অবহিত করতে হবে। আর ইলেকট্রনিক পদ্ধতির সব ধরনের পরিশোধ সেবার ক্ষেত্রে গ্রাহকদের সতকর্তা অবলম্বনে প্রচার-প্রচারণা চালাতে বলা হয়েছে। কোনো অবস্থায় গ্রাহক যেন হয়রানির শিকার না হন সে ব্যবস্থার লক্ষ্যে সার্বক্ষণিক ব্যাংকের হেল্প লাইন সহায়তা চালু রাখতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দেশে কার্যরত ব্যাংকগুলোর মোট ৯ হাজার ৫৮৬টি এটিএম বুথ ও ৩৮ হাজার পস টার্মিনাল রয়েছে। মোট কার্ড রয়েছে প্রায় এক কোটি ২৯ লাখ। এর মধ্যে এক কোটি ১৮ লাখ রয়েছে ডেবিট কার্ড। ক্রেডিট কার্ড রয়েছে ৯ লাখ ৫৪ হাজার। আর প্রিপেইড কার্ড রয়েছে এক লাখ ৫০ হাজার।

আন্তঃব্যাংক এটিএম, পয়েন্ট অব সেলস (পস), ইন্টারনেট ব্যাংকিং ও মোবাইল ব্যাংকিং- এই চার ধরনের সেবা দিতে ২০১২ সালে ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ বাংলাদেশ বা এনপিএসবি চালু করে বাংলাদেশ ব্যাংক। গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এনপিএসবির আওতায় ৫১টি ব্যাংক এটিএম সেবা দিচ্ছে। ৫০টি ব্যাংক পস সেবা চালু করেছে। আর ৯টি ব্যাংকের মধ্যে আন্তঃব্যাংক ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা চালু হয়েছে। এছাড়া আন্তঃব্যাংক মোবাইল ব্যাংকিং চালুর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন