জাতীয়প্রধান সংবাদ

গাজীপুর সিটিতে ‘সুষ্ঠু’ ভোট হলে জয়ের আশা বিএনপির

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অবাধ ও সুষ্ঠু ভোট হলে শতভাগ জয়লাভের আশা করছে বিএনপি। দলটি বলেছে, ন্যূনতম সুষ্ঠু ভোট অনুষ্ঠিত হলে লক্ষাধিক ভোটের ব্যবধানে তাদের প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার বিজয়ী হবেন।

বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয় গুলশানে রোববার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ আশা প্রকাশ করেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ব্যবস্থা নেওয়া জরুরি।

বিএনপি মহাসচিব আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, তারা জানতে পেরেছেন, যেসব ভোটকেন্দ্রে তিন হাজারের বেশি ভোট রয়েছে, সেগুলোতে আগের রাতেই ব্যালট বাপ ভর্তি করা হবে।

এ সময় মির্জা ফখরুল গাজীপুরবাসীর প্রতি বলেন, আপনাদের যে সাংবিধানিক অধিকার, ভোটের অধিকার, তা প্রতিষ্ঠা করতে সব বাধা-বিপত্তি অতিক্রম করে সকাল থেকে ঐক্যবদ্ধভাবে কেন্দ্রে যাবেন। নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবেন।

নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, এই নির্বাচন কমিশন সিটি করপোরেশন নির্বাচন পরিচালনা করতে পারছে না। তারা জাতীয় নির্বাচন পরিচালনা করবে কীভাবে? ইসি যদি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে না পারে, তা হলে তাদের উচিত পদত্যাগ করা।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন এলাকার নির্বাচনী পরিস্থিতি তুলে ধরে ফখরুল বলেন, সেখানে এখন ত্রাসের রাজত্ব কায়েম হয়েছে। বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে, তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভীতি প্রদর্শন করা হচ্ছে। বিএনপিসহ বিভিন্ন দলের প্রার্থী এসব অভিযোগ করে এলেও ইসি তাতে কর্ণপাত করছে না। এর বড় প্রমাণ, আওয়ামী লীগের প্রার্থী পুলিশের গাড়িতে করে প্রচারণা চালালেও কোনো প্রতিকার হয়নি।

‘নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে বিএনপির সঙ্গে প্রেম নয়’- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, ‘ওবায়দুল কাদের একসময় ভালো কবিতা লিখতেন। আর ভালো কবিতা তারাই লেখেন, যারা প্রেম করেন। প্রেম না হলে তো রাজনীতিও করা যাবে না। মানুষের প্রতি ভালোবাসা, দেশের প্রতি ভালোবাসা সেটাও হবে না। সুতরাং প্রেম তো করতেই হবে। কারণ এই দেশটা তো সবার- কারও পৈতৃক সম্পত্তি নয়।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, গাজীপুরে আওয়ামী লীগের নির্বাচন তাদের দলের নেতাকর্মীরা পরিচালনা করছেন না। তাদের নির্বাচনী দায়িত্ব নিয়েছে সেখানকার পুলিশ সুপার আর গোয়েন্দা সংস্থা।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন