প্রধান সংবাদরাজনীতি

তৃণমূল নেতাদের সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

স্বাধীনতাবিরোধী, জঙ্গি ও খুনিরা যাতে আর ক্ষমতায় না আসতে পারে সে ব্যাপারে তৃণমূল নেতাদের সজাগ থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন,‘আগামী নির্বাচনে নিয়ে যেন কোনো দলীয় কোন্দল না হয়। যেসব ইউনিয়ন কমিটি নিয়ে দ্বন্দ্ব আছে খুব দ্রুত সেগুলো মিটিয়ে ফেলতে হবে।’ আজ শনিবার গণভবনে অনুষ্ঠেয় আওয়ামী লীগের দ্বিতীয় পর্যায়ের বর্ধিত সভায় বক্তৃতাকালে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যারা আমাদের মানুষ হত্যা ও নির্যাতন করেছে তাদের নিয়ে আপনারা টানাটানি না করে নতুন নতুন কর্মী সৃষ্টি করুন।

তিনি বলেন, ‘৩০ জুলাই যেদিন বাংলার মাটি থেকে গিয়েছিলাম সেদিন সবাই (আব্বা, মা, কামাল ও জামাল) ছিল। কিন্তু ১৯৮১ সালের দীর্ঘ নির্বাসন শেষে বাংলার মাটিতে যখন ফিরে এলাম নিঃস্ব-রিক্ত একা। কেউ নেই, কোনো চেনা মুখ নেই। দেখলাম বনানীতে সারিসারি কবর। ৩২ নং এ যাব সবার কবর জিয়ারত করতে, কিন্তু জিয়াউর রহমান আমাকে সেখানে ঢুকতে দেয়নি। তখন বাইরে বসে তাদের জন্য দোয়া করতে হচ্ছিল।’

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, ‘সব হারিয়ে নিঃস্ব-রিক্ত হয়ে এসেছি কিন্তু পেয়েছি বিশাল পরিবার। আমার পরিবার হলো বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সংযোগী সংগঠন। আমি তাদের কাছে স্নেহ পেয়েছি, ভালোবাসা পেয়েছি। আর পেয়েছি বাংলার জনগণের ভালোবাসা।’

প্রধানমন্ত্রী এ সসময় স্মৃতিচারণ করে বলেন, ‘আমি ছাত্র রাজনীতি করেছি স্কুল জীবন থেকে। ইডেন কলেজ ছাত্রসংসদের ভিপি ছিলাম। ১৯৬২ সাল থেকে মিছিলে গিয়েছি। কিন্তু এতবড় একটা দল চালাব তা কখনো ভাবেনি। এই তৃণমূলই আমাকে নেতৃত্ব দিয়ে সহায়তা করে আসছে।’

এর আগে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান ও নবনির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলম।

চট্টগ্রাম, রাজশাহী, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের ইউনিয়ন পর্যায়ের প্রতিনিধিদের নিয়ে এ বর্ধিত সভার অয়োজন করা হয়। সভায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সব সদস্য, ইউনিয়ন আওয়ায়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক, ইউনিয়ন পরিষদের দলীয় চেয়ারম্যানরা উপস্থিত রয়েছেন।

আগের বিশেষ বর্ধিত সভায় দলীয় সভানেত্রীর বক্তব্যে তৃণমূল অনেকটাই চাঙ্গা বলে মনে করছেন নেতারা বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে এবারও নানা দিকনির্দেশনা দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

একইভাবে তৃতীয় দফায় আগামী ৭ জুলাই বাকি চার বিভাগ ঢাকা- ময়মনসিংহ- খুলনা ও রংপুরের তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে হবে বিশেষ বর্ধিত সভা।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন