খেলাপ্রধান সংবাদ

অাজ অ্যান্টিগায় শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট সিরিজ

বিশ্বকাপ ফুটবলজ্বরে কাঁপছে বিশ্ব। পিছিয়ে নেই বাংলাদেশও। চায়ের টেবিল, অফিস-আদালত, অলি-গলিতে সবখানে কান পাতলেই শোনা যায় ফুটবলের আলোচনা। এরই মাঝে অনেকটা নীরবেই বেজে উঠল বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের দামামা। দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট শুরু হচ্ছে আজ। বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় শুরু হবে অ্যান্টিগা টেস্ট।

বাংলাদেশের নতুন কোচ স্টিভ রোডসের প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট। তার অধীনে সবকিছু নতুন করে শুরু করতে চান টাইগাররা। সাকিব-মুশফিকরা ভুলে যেতে চান সবশেষ শ্রীলংকার বিপক্ষে দেশের মাটিতে খেলা দ্বিপক্ষীয় টেস্ট সিরিজের স্মৃতি! অ্যান্টিগা টেস্ট দিয়ে সাকিব আল হাসানের দ্বিতীয় দফায় পাওয়া অধিনায়কের পথচলাও শুরু হবে। তার হাতে নেতৃত্বের ঝা-া তুলে দেওয়ার পর প্রথম অ্যাসাইনমেন্ট ছিল শ্রীলংকার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ। তবে বছরের শুরুতে ত্রিদেশীয় সিরিজের (বাংলাদেশ-শ্রীলংকা-জিম্বাবুয়ে) ফাইনালে পাওয়া চোটের কারণে তিনি ছিটকে যান। হাথুরুসিংহের লংকার কাছে ১-০তে সিরিজ হারা বাংলাদেশ দলের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

বাংলাদেশ দল নতুনভাবে ঘুরে দাঁড়াতে চায়। টাইগারদের নতুন ইংলিশ কোচ স্টিভ রোডসও দেশ ছাড়ার আগে সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তারা সিরিজ জয়ের লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামবেন। কয়েকদিন আগেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ পৌঁছেছেন। ওখানকার কন্ডিশনের সঙ্গে মানিয়ে নিতে প্রথম টেস্টের ভেন্যু অ্যান্টিগার স্যার ভিভ রিচার্ডস স্টেডিয়ামে অনুশীলন করেছেন। এ ছাড়া একটি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলেছেন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়েই নিজেদের ফিরে পেতে মরিয়া সাকিব-মুশফিকরা।

টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বাংলাদেশের অতীত পরিসংখ্যান সমৃদ্ধ নয়। দুই দল মোট ১২টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছে। বাংলাদেশের দুই জয়ের বিপরীতে হার আটটি। দুদল সবশেষ টেস্ট সিরিজ খেলেছে ২০১৪ সালে। উইন্ডিজ সফরে গিয়ে খেলা ওই সিরিজের ফলও মধুর নয়। দুই টেস্টেই স্বাগতিকদের কাছে হেরে যায় টাইগাররা।

তবে ওয়ানডের মতো টেস্টেও এখন বাংলাদেশ দল উন্নতি করছে। দেশে ও দেশের বাইরে তারা সাফল্যও পাচ্ছে। নিজেদের শততম টেস্টে শ্রীলংকার মাটিতে গিয়ে হারিয়েছে স্বাগতিকদের। এ ছাড়া দেশের মাটিতে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মতো দলকে হারানোর রেকর্ডও আছে বাংলাদেশের। টেস্টে উন্নতি করাটাই সাকিবদের মানসিকভাবে উদীপ্ত করছে। উইন্ডিজদের বিপক্ষে নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে জেতা সম্ভব বলেই মনে করছেন সফরকারী দলের খেলোয়াড়রা।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য বাড়তি সুবিধা হতে পারে দেশের মাটিতে খেলা। হোম কন্ডিশন তাদের এগিয়ে রাখবে। তা ছাড়া তারা টেস্টের মেজাজেই রয়েছেন। জুনেই শ্রীলংকার বিপক্ষে খেলেছে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। অবশ্য জিততে পারেনি স্বাগতিকরা। ড্র দিয়ে শেষ হয়েছে। বাংলাদেশ সবশেষ টেস্ট খেলেছে ফেব্রুয়ারিতে দেশের মাটিতে শ্রীলংকার বিপক্ষে। সাকিব অবশ্য কোনো কিছু নিয়েই ভাবছেন না। তাদের লক্ষ্য শুরুটা ভালো করা। টেস্টে নিজেদের সেরাটা দিতে পারলে ভালো কিছু হবে বলেই বিশ্বাস বাংলাদেশের অধিনায়কের।

 

 

দেশরির্পোট/আরাফাত

 


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন