বিনোদন

ওয়েব সিরিজ হিসেবে সানির বায়োপিকের প্রিমিয়ার ১৬ জুলাই

পর্নস্টার ও রাস্তায় দাঁড়ানো দেহপসারিণীর মধ্যে কোনও ফারাকই করেন না অনেক মানুষ। অর্থাৎ পরোক্ষে দু’জনেই বসেন একাসনে। যে কেউ এ প্রশ্ন বা প্রসঙ্গের সামনে অপ্রস্তুত হতে পারতেন। তবে যিনি এ প্রশ্নেরও জবাব সপাটে দিতে পারেন, তিনি সানি লিওন। চোখে চোখ রেখে জানিয়েছিলেন, সাদৃশ্য একটা আছে বটে, তা হল সাহস। সেই সাহসী মেয়েরই আত্মকথা এবার ওয়েব সিরিজের বিষয়বস্তু। বায়োপিক তৈরি হয়েছে সানি লিওনের- ‘করেনজিত কৌর: দ্য আনটোল্ড স্টোরি অফ সানি লিওন।’ তারই ট্রেলার এল সামনে।

সানি লিওনের নাম যে করেনজিত কৌর, এই সেদিনও তা কেউ জানতেন না প্রায়। ইরোটিক ইন্ডাস্ট্রি থেকে তাকে যখন তুলে এনেছিল ভাট ক্যাম্প, তখন তার পরিচয় পর্নস্টারই। তিনি যতই নিজেকে মডেল হিসেবে তুলে ধরুন না কেন, পর্ন ইন্ডাস্ট্রির এক নম্বর নায়িকাকে চেনা তকমা দিয়ে দিতে কসুর করেননি বলিপাড়া। সেখান থেকে অভিনেত্রী হয়ে উঠতে সানিকে যত না অভিনয়ে কসরত করতে হয়েছে, তার থেকে বেশি পেরোতে হয়েছে সামাজিক ও মানসিক বাধা। পর্ন দুনিয়া তিনি পিছনে ফেললেও, সে দুনিয়ার বাইরে তাকে কেউ ভাবতেই নারাজ ছিলেন। তার জেরেই ওরকম বিতর্কিত প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছিল তাকে। এবং তার সাহসী উত্তর সেদিন ভাবিয়েছিল ইন্ডাস্ট্রিকে। একে একে তারকারা পাশে এসে দাঁড়িয়েছিলেন। সানি সম্পর্কে ভাবমূর্তি অনেকটা পালটেওছিল। তবে কার্যত দেখা গেল কিছুতেই কিছু হয়নি। এমনকী কন্যাসন্তান দত্তক নেওয়ার পরও সেই হেনস্তাই সহ্য করতে হয়েছে। এই জীবনের কথাই এবার উঠে আসছে বায়োপিকে। যেখানে থাকবে করেনজিতের কথাও। পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে এসে যে নাম বদলে ফেলতে হয়েছিল তাঁকে। সেই পাড়ার মেয়ে থেকে একজন সফল ইরোটিক স্টার হওয়ার পিছনে পারিবারিক দারিদ্র্য ও প্রতিবন্ধকতা কী কী ছিল তাই-ই তুলে ধরছেন পরিচালক। ছবিতে তরুণী সানির ভূমিকায় দেখা যাবে রিয়াস সৌজানিকে। ওয়েব সিরিজ হিসেবে সানির বায়োপিকের প্রিমিয়ার ১৬ জুলাই।

ভিডিও দেখুন:

 

দেশরির্পোট/অারাফাত


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন