প্রধান সংবাদসারাদেশ

চাঁদপুরে পদ্মা-মেঘনায় মিলছে না ইলিশ

অভয়াশ্রম শেষে দুমাস পার হলেও এখনো দেখা মিলছে না কাক্সিক্ষত ইলিশের। দিনে রাতে হাজার হাজার জেলে চাঁদপুর পদ্মা মেঘনায় চষে বেড়ালেও ফিরছেন খালি হাতে। আবার কোনো কোনো জেলে স্বল্পসংখ্যক ইলিশ পেলেও তা দিয়ে জ্বালানি খরচও মেটাতে পারছেন না। ফলে অভয়াশ্রমকালীন দেনার দায় থেকে মুক্তি পাচ্ছেন না জেলেরা। তবে আগামী ভাদ্র মাস থেকে ইলিশ ধরা পড়বে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত বুধবার চাঁদপুর সদর উপজেলার বহরিয়া, হরিণা ফেরিঘাট ও শহরের বড় স্টেশন মাছঘাটে গিয়ে একাধিক ব্যবসায়ী ও জেলের সঙ্গে কথা হয়। তারা বলেন, গত মার্চ-এপ্রিল অভয়াশ্রমের দুমাসে কিছু অসাধু জেলে প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে অবাধে ইলিশ শিকার করেন। এর প্রভাবে এখন নদীতে পানি বাড়লেও দেখা মিলছে না কাক্সিক্ষত ইলিশের। এতে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি।

বহরিয়া এলাকার মাছ ব্যবসায়ী হযরত বেপারী বলেন, এক সময় জ্যৈষ্ঠ ও আষাঢ় মাস থেকেই ইলিশ ধরা পড়ত; কিন্তু এখন আর সেই দিন নেই। এখন ইলিশের ভরা মৌসুমেও ইলিশ পাওয়া যায় না। তবে এ জন্য তিনি অবাধে জাটকা নিধনকেই দায়ী করছেন।

হরিণা ফেরিঘাট এলাকার ব্যবসায়ী আহসান ছৈয়াল বলেন, এ ঘাটে ১৫ জন ইলিশ ব্যবসায়ী রয়েছেন। গত বছরও এই সময়ে আমরা প্রতিদিন ২০ থেকে ৩০ মণ ইলিশ পাইকারি বিক্রির জন্য বিভিন্ন স্থানে পাঠিয়েছি। কিন্তু এ বছর ইলিশ না থাকায় আমরা হতাশ।

এদিকে হরিণা ফেরিঘাট ও বহরিয়া এলাকার জেলে মোস্তফা, হাফেজ ছৈয়াল ও লিটন হতাশা ব্যক্ত করে বলেন, ইলিশ ধরা না পড়ায় আমরা পরিবার-পরিজন নিয়ে খুব কষ্টে আছি। জানি না কীভাবে সংসার চলবে।

চাঁদপুর শহরের বড় স্টেশন মাছঘাটের মেসার্স মিজানুর রহমান কালু ভূঁইয়ার আড়তের ম্যানেজার মো. ফারুক বলেন, বর্তমানে প্রতিদিন দক্ষিণাঞ্চল থেকে ১০-১২ মণ আর স্থানীয় জেলেদের কাছ থেকে ৫-৬ মণ ইলিশ আমদানি হচ্ছে, যা চাহিদার তুলনায় ১০ ভাগের এক ভাগ।

তবে এ বছর অভয়াশ্রম মৌসুম সফলভাবে সমাপ্ত হয়েছে বলে চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আসাদুল বাকী জানান। ইলিশ না পাওয়া প্রসঙ্গে তিনি আমাদের সময়কে বলেন, নদীতে ইলিশ মাছ এখনো আসেনি। পাহাড়ি ঢল ও নদীতে খরস্রোত দেখা দিলে ইলিশের দেখা মিলবে। আগামী ভাদ্র মাস থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণে ইলিশ পাওয়া যাবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

 

 

 

দেশরির্পোট/এ এইচ


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন