রাজনীতি

তিন সিটিতেই একক প্রার্থী দেওয়ার সিদ্ধান্ত ২০ দলের

আসন্ন সিলেট, রাজশাহী ও বরিশালে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে একক প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২০ দলীয় জোট।বুধবার বিকেলে ২০ দলীয় জোটের বৈঠকের পর জোটের সমন্বয়কারী নজরুল ইসলাম খান এ কথা জানান।

রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রাজনৈতিক কার্যালয়ে বিকেলে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।বৈঠক শেষে নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, তিন সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। আলোচনায় সিদ্ধান্ত হয় যে প্রতিটি সিটি করপোরেশনে ২০ দলের একজন করেই প্রার্থী থাকবেন এবং সেই একক প্রার্থীর পক্ষে সবাই একযোগে কাজ করবেন।

জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামীর সিলেট মহানগর আমির এহসানুল মাহবুব জুবায়েরের প্রার্থিতার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে নজরুল ইসলাম খান বলেন, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় এখনও শেষ হয়নি। প্রার্থী একজনই থাকবেন। বৈঠকে তিন সিটিতে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় জোটের পক্ষ থেকে পৃথক তিনটি টিম গঠন করা হয়। তবে সিলেট সিটি নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী প্রত্যাহারের বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানায়নি জামায়াতে ইসলামী। দলটির কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য আবদুল হালিম জানান, এ ব্যাপারে দলীয় ফোরামে আলোচনার পর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবেন তারা।

সিলেটে জামায়াতে ইসলামী ছাড় দেবে না বলে গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে। এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘সেটা তাদের বক্তব্য। ২০ দলের বক্তব্য হচ্ছে, একক প্রার্থী নিয়েই নির্বাচন করব।’ সে ক্ষেত্রে বিএনপি ও জামায়াতের পৃথক প্রার্থী থাকবে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা নির্ভর করবে যখন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। তখন আপনারা জানতে পারবেন। তবে সিলেটে যে প্রার্থী দিয়েছি (আরিফুল হক চৌধুরী), তাকে ২০ দল এরই মধ্যে অনুমোদন দিয়েছে।’

সিলেটের প্রার্থী নিয়ে বিএনপির সঙ্গে জামায়াতের কোনো টানাপড়েন হয়েছে কি-না জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘প্রশ্নই ওঠে না। জোটের প্রস্তাবেই রয়েছে যে ২০ দল একত্রিতভাবেই কাজ করবে।’

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘আজকের বৈঠকে জামায়াতে ইসলামীর প্রতিনিধি ছিলেন। তারা একমত হয়েছেন যে, তারা একক প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবেন।’ বৈঠকে কারাবন্দি জোট নেত্রী খালেদা জিয়ার জামিন বিলম্বে ‘সরকারের ছলচাতুরির’ নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবি জানানো হয়।

বৈঠকে শেষে ২০ দলীয় জোটের প্রস্তাবে কারাবন্দি নেতা-কর্মীদের ‘মিথ্যা মামলা’ প্রত্যাহার ও তাদের মুক্তি, গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ফলাফল প্রত্যাখান, কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ওপর হামলা ও গ্রেপ্তারের ঘটনার নিন্দা জানানো হয়। এছাড়া জাতিসংঘ মহাসচিবের রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনে জোটের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানিয়ে তাদের নিজ দেশে ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর আরো আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টির জন্য আহ্বান জানানো হয়। ইউএনওদের শিক্ষা ও রাজনৈতিক জীবন এবং তাদের নিকট আত্মীয়দের বিষয়ে সরকার গোপন অনুসন্ধানে চালাচ্ছে বলে যে খবর বেরিয়েছে তারও নিন্দা জানিয়েছে ২০ দল।

 

 

দেশরির্পোট/এ এইচ


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন