খেলা

মেক্সিকোর শাপমোচনের অপেক্ষা

বিশ্বকাপে বড় সাফল্য বলতে দু’বার কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠা। প্রথমবার ১৯৭০, পরেরবার ১৯৮৬। অর্জন কেবল এটাই। বাকি ১৩ বারই জুটেছে বড়সড় হতাশা। যার মধ্যে সবচেয়ে দুঃসময় দেখতে হয় শেষ ছয়টি বিশ্বকাপে! ১৯৯৪ থেকে ২০১৪ ব্রাজিল বিশ্বকাপ পর্যন্ত মেক্সিকানদের আশা-ভরসা শেষ ষোলো নামক একটা গণ্ডির মধ্যেই বন্দি ছিল। এই ছয়বারের কোনো বারই নকআউট বাধা পেরোতে পারেনি উত্তর আমেরিকার দেশটি। এবার কি সেই ফাঁড়া কাটাতে পারবেন হাভিয়ের হার্নান্দেজরা। আজ রাতে ব্রাজিলের বিপক্ষে রীতিমতো শাপমোচনের অপেক্ষায় নামছেন হুয়ান কার্লোসের শিষ্যরা।

১৯৯৪ বিশ্বকাপে প্রথম রাউন্ডে দারুণ খেলে মেক্সিকো। গ্রুপ পর্বে সবাইকে তাক লাগিয়ে শীর্ষে থেকেই নকআউট পর্বের টিকিট কাটে দলটি। কিন্তু শেষ ষোলোতে এসেই থমকে যায়। বুলগেরিয়ার সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করার পর পেনাল্টি শুটে আসর থেকে কাটা পড়ে মেক্সিকো। এরপর ১৯৯৮ ফ্রান্স বিশ্বকাপের শুরুটাও হয়েছে ঝকঝকে। প্রথম রাউন্ডে নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম আর দক্ষিণ কোরিয়ার মতো ডেথ গ্রুপে থেকেও নাম লেখায় শেষ ষোলোতে। তাও গ্রুপের দ্বিতীয় অবস্থান থেকে। নকআউট পর্বে এসে সেই দশ। সে বছর জার্মানির কাছে ২-১ ব্যবধানে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে পড়েছিল মেক্সিকো। পেছনের এই দুই হতাশা ভুলে নতুন করে শুরু করার প্রত্যয়ে চার বছর অপেক্ষা করে দেশটির ফুটবলপাগল মানুষরা। লক্ষ্য ২০০২ জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া বিশ্বকাপ। শুরুটা দুর্দান্ত হয়েছিল। গ্রুপ পর্বের প্রথম ম্যাচেই ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে আশা জাগায় তারা। দ্বিতীয় ম্যাচে ইকুয়েডরকে ধরিয়ে দিয়ে টানা দুই জয় তুলে নকআউট নিশ্চিত করে ফেলে। শেষ ম্যাচটা অবশ্য ইতালির সঙ্গে ড্র করে মেক্সিকো। তাতে গ্রুপ পর্বের চূড়া থেকেই শেষ ষোলোর মিশনে নামে মেক্সিকো। প্রথম রাউন্ডে চমৎকার নৈপুণ্য দেখানো দলটিকে নিয়ে সেবার অনেকদূর যাওয়ার স্বপ্ন দেখেছিল সমর্থকরা; কিন্তু হলো না। সেই নকআউটেই চাপা পড়ল শুভাকাঙ্ক্ষীদের সব আশা। অপেক্ষাকৃত দুর্বল প্রতিপক্ষ যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ২-০ গোলে হেরে বিদায় নিতে হলো। ২০০৬, নতুন করে সাজল মেক্সিকো টিম। দলে এলো অনেক রদবদল। আশার বেলুন উড়িয়ে জার্মান যাত্রা। বরাবরের মতো গ্রুপ পর্বের বাধা পেরিয়ে নকআউটে নাম উঠানো। এরপর ঘুরেফিরে সেই হতাশা। এবার দু’বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার কাছে হেরে ছাড়তে হলো আসর। এভাবে কেটে গেল আরও চার বছর। আবারও চোখের সামনে বিশ্বকাপ। নব উদ্যোমে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে পা ফেলা।

কিন্তু যাওয়া হলো না দূর। সেই নকআউট পর্বেই আটকা পড়ল মেক্সিকোর ভাগ্য। গ্রুপ পর্বের বাধা পেরিয়ে শেষ ষোলোতে আর্জেন্টিনার কাছেই পরাজয়ের স্বাদ পেতে হয়। আরেকবার ভাঙল হৃদয়। ২০১৪ বিশ্বকাপে। ব্রাজিলের মাটিতে প্রায় নিজ দেশের আবহাওয়ার মতোই পরিবেশ। সাম্বার দেশে প্রিয় দলকে সমর্থন দিতে দল বেঁধে এলেন লাখো ভক্ত। গ্রুপ পর্বের প্রতিটি ম্যাচে গ্যালারি মাতিয়ে পুরো দলকে দিয়ে যায় এগিয়ে যাওয়ার সাহস। তার পরও যে হলো না। সেই নকআউট সাগরেই ডুবল মেক্সিকোর শিরোপার স্বপ্ন। ১৯৩০ সালে বিশ্বকাপে প্রথম অংশ নেয় মেক্সিকো। সে থেকে এবারসহ ১৬ বার বিশ্বকাপে খেলছে তারা।

 

 

দেশরির্পোট/আরাফাত


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন