সারাদেশ

স্ত্রীর পেটে ছুরি মেরে থানায় হাজির স্বামী

মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রীর পেটে ছুরিকাঘাত করে থানায় হাজির হয়েছেন স্বামী আব্দুল আহাদ (২৯)।

গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের পশ্চিম ভবানীপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ছুরিকাঘাতে আহত ওই নারীর নাম ছালমা বেগম (২৫)। তিনি বর্তমানে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

পেশায় অটোরিকশাচালক আবদুল আহাদ উপজেলার জায়ফরনগর ইউনিয়নের পশ্চিম ভবানীপুর গ্রামের বাসিন্দা। আহাদ-ছালমা বেগম দম্পতির দুই ছেলে রয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছালমা বেগম ও আবদুল আহাদের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল। সেই কলহের জেরে মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে আহাদ ঘরে ঢুকে ধারালো ছুরি দিয়ে আকস্মিকভাবে ছালমার তলপেটে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করেন। ছালমার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে এলে আহাদ ঘর থেকে বের হয়ে জুড়ী থানায় গিয়ে হাজির হন এবং পুলিশের কাছে ঘটনার বর্ণনা দেন।

এদিকে, আহত অবস্থায় ছালমাকে উদ্ধার করে প্রথমে কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

জুড়ী থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) সুধীন চন্দ্র দাস বলেন, মঙ্গলবার রাতে আহাদ থানায় এসে নিজের পরিচয় দিয়ে বলেন, তিনি স্ত্রীকে ছুরি মেরে এসেছেন। স্ত্রী বেঁচে আছেন কি না জানেন না। ছুরি কোথায় পেলেন জানতে চাইলে বাজারের একটি দোকান থেকে ১৫০ টাকা দিয়ে কিনেছেন বলে জানান। পারিবারিক অশান্তির কারণে তিনি এ কাজ করেছেন বলে স্বীকার করেন। এ সময় আহাদকে খুবই স্বাভাবিক লেগেছে। মাদকাসক্ত বলেও মনে হয়নি। পরে তাকে হাজতে আটক রেখে তারা ঘটনাস্থলে যান। এর আগেই ছালমাকে স্বজনেরা হাসপাতালে নেন। ঘটনাস্থল থেকে রক্তমাখা ছুরি জব্দ করা হয়েছে।

পারিবারিক কলহের জের ধরেই এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ। স্বজনেরা ছালমার চিকিৎসা নিয়ে ব্যস্ত থাকায় এখনও লিখিত অভিযোগ দেননি। তারা সিলেট থেকে ফিরে অভিযোগ দেবেন বলেও জানান পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) সুধীন চন্দ্র দাস।

 

 

দেশরির্পোট/জেড,আর/জনি


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন