বিনোদন

জাহিদ হাসান-উর্মিলার ‘নার্ভাস ব্রেক ডাউন’

এটিএন বাংলার ঈদ অনুষ্ঠানমালায় প্রচার হবে নাটক ‘নার্ভাস ব্রেক ডাউন’। ঈদের চতুর্থ দিন রাত ৮টা ৩০ মিনিটে প্রচার হবে নাটকটি। কমেডি নির্ভর এই নাটকটি রচনা করেছেন শৌর্য দীপ্ত সূর্য। পরিচালনা করেছেন জাহিদ হাসান। অভিনয় করেছেন জাহিদ হাসান, উর্মিলা শ্রাবন্তী কর, আলীরাজ, রাশেদা চৌধুরী,  নুর-ই-আলম নয়ন প্রমুখ।

হাসনাত একটি বেসরকারী কোম্পানীতে এক্সিকিউটিভ পদে মৌখিক পরীক্ষা দিতে আসে। ইন্টারভিউ বোর্ডের লোকেরা হাসনাতের ঠিক একজন আগের প্রার্থীকে ডাকে, তখনই সে টেনশনে ওয়াশ রুমে ঢোকে। এরপর যখন হাসনাতের ডাক আসে তখন তার বন্ধুরা অনেক ধাক্কাধাক্কি করে তাকে ওয়াশরুম থেকে বের করালে সাথে সাথে হাসনাত খুব জোরে দৌড় দিয়ে পালিয়ে যায়। বন্ধুরা যখন তাকে ধরে নিয়ে এসে ইন্টারভিউ বোর্ডকে রাজী করিয়ে বসিয়ে দেয় তখন ইন্টারভিউ বোর্ডের সদস্যরা অবাক হয়ে দেখে যে, হাসনাত কোনদিন কোন পরীক্ষায় সেকেন্ড হয়নি। ইন্টারভিউ বোর্ডকে অবাক করে হাসনাত তাদের সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দেয়। এভাবেই গল্প শুরু হয় নাটক ‘নার্ভাস ব্রেক ডাউন’।

জমিদার বংশের একমাত্র উত্তরসূরী হাসনাত। কঠিন নিয়ম কানুন আর অনুশাসনের মধ্যে বড় হয়েছে সে। বাবার আদেশ অনুযায়ী স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রত্যেক পরীক্ষায় প্রথম হয়েছে। বাবার ভয়ে সবসময় তটস্থ থাকে সে। গ্রাম ছেড়ে ঢাকায় চাকরি করেন হাসনাত।একদিন বাবার মৃত্যু খবরে ঢাকা থেকে দ্রুত গ্রামে চলে আসে হাসনাত। মৃত বাবাকে ধরে কান্নাকাটির সময় বাবা উঠে বসেন বাবা। ছেলেকে বাড়িতে আনার কৌশল ছিল এটি। বাবা উঠেই ঘোষণা করেন, অনেক ছাড় দেয়া হয়েছে, আর না। পাশের গ্রামে আজ রাতেই মেয়ে দেখা হবে। পছন্দ হলে রাতেই বিয়ে। বাবার এমন ঘোষণার পর সে রাতেই পালিয়ে যায় হাসনাত। কিন্তু পালিয়েও নিস্তার পাননা। ধরে এনে তাকে ঠিকই বিয়ে দেয়া হয়। বাসর ঘর থেকেও পরে বউকে রেখে পালিয়ে যান হাসনাত। এরপর কী ঘটে? জানতে হলে নাটকটি টেলিভিশনের পর্দায় দেখতে হবে।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন