রাজনীতি

জামায়াতকে না ছাড়লে জাতীয় ঐক্যে স্থান হবে না বিএনপির

ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর (বি. চৌধুরী) নেতৃত্বাধীন বিকল্পধারার নেতারা শর্ত দিয়েছেন, জামায়াতে ইসলামীকে না ছাড়লে জাতীয় ঐক্যে স্থান হবে না বিএনপির। স্বাধীনতাবিরোধী দল ও ব্যক্তিদের সঙ্গ ত্যাগের ঘোষণা দিয়ে বিএনপিকে জাতীয় ঐক্যে আসতে হবে।

মঙ্গলবার বিকল্পধারার সহযোগী সংগঠনের নেতারা ‘জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার’ নেতাদের কাছে চিঠিতে এ আহ্বান জানান। শর্ত পূরণের আগে জাতীয় ঐক্যের সঙ্গে সংশ্নিষ্ট নেতাদের বিএনপির কোনো অনুষ্ঠানে যোগ না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন বিকল্পধারার নেতারা।

মঙ্গলবার বারিধারায় বিকল্পধারার সভাপতি বি. চৌধুরীর বাসায় যুক্তফ্রন্ট ও জাতীয় ঐক্যের নেতাদের বৈঠক হয়। এতে বিএনপির পর্যবেক্ষক হিসেবে যোগ দেন দলটির ভাইস চেয়ারম্যান ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু। গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন অসুস্থতার কারণে এ বৈঠকে আসতে পারেননি বলে জানানো হয়েছে।

বৈঠকে বিকল্পধারার প্রস্তাবে বলা হয়, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় যুক্ত হতে হলে বিএনপিকে স্বাধীনতাবিরোধী ব্যক্তি ও দল ছাড়তে হবে। বিএনপির সঙ্গে ঐক্য চায় বিকল্পধারা। তবে স্বাধীনতাবিরোধী কাউকে শরিক হিসেবে রাখলে দলটির সঙ্গে ঐক্য হবে না।

বিকল্পধারা, জেএসডি ও নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ে গঠিত যুক্তফ্রন্ট এবং ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া সরকারের বাইরে থাকা সব দলকে নিয়ে ‘বৃহত্তর জাতীয় ঐক্য’ গঠনের ডাক দিয়েছে। শনিবার তাদের সমাবেশে যোগ দেন বিএনপি নেতারা। বিএনপি বলছে, বৃহত্তর ঐক্য গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

মুক্তিযুদ্ধবিরোধী ভূমিকার কারণে জামায়াতের বিরোধিতা করলেও জাতীয় ঐক্যের গত শনিবারের সমাবেশে ছিল খেলাফত মজলিসের উপস্থিতি। ২০ দলের শরিক এ দলটির আমির মাওলানা মুহম্মদ ইসহাক মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানের মালেক মন্ত্রিসভার সদস্য ছিলেন। ১৯৭৩ সালে দালাল আইনে তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছিল। বিকল্পধারার মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নানের বিরুদ্ধেও মুক্তিযুদ্ধে বিরোধিতার অভিযোগ উঠেছে।

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় যুক্ত থাকা জেএসডি, নাগরিক ঐক্য ও গণফোরাম বিএনপি-জামায়াতের জোট নিয়ে নমনীয় অবস্থানে থাকলেও বিকল্পধারা কঠোর ভূমিকায় রয়েছে। জামায়াতের সঙ্গে জোট থাকলেও বিএনপিকে জাতীয় ঐক্যে অন্তর্ভুক্ত করতে আপত্তি নেই জেএসডি, নাগরিক ঐক্য ও গণফোরামের। তবে বিকল্পধারা শর্ত দিয়েছে, জামায়াত ছাড়লে তবেই বিএনপির সঙ্গে ঐক্য হবে।

বিকল্পধারার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাহবুব ঢালী, উত্তরের সভাপতি সাহিদুর রহমান, যুবধারার সভাপতি ওবায়েদুর রহমান মৃধা, শ্রমধারার সভাপতি আইনুল হক ও স্বেচ্ছাসেবকধারা সভাপতি বি এম মিজানের স্বাক্ষরিত চিঠিতে মঙ্গলবারের বৈঠকে বিএনপিকে জামায়াত ছাড়ার এ শর্ত দেওয়া হয়।

এতে বলা হয়েছে, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান প্রতিষ্ঠিত বিএনপির সঙ্গে আমরা জাতীয় ঐক্য চাই। তবে স্বাধীনতাবিরোধী কোনো দল বা ব্যক্তিকে শরিক রাখলে বিএনপিকে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত করা যাবে না। স্বাধীনতাবিরোধী দল বা ব্যক্তির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত বিএনপি জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার মঞ্চে স্থান পেতে পারে না।

বিকল্পধারার প্রস্তাবে আরও রয়েছে, ‘একটি দলের একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা দেশের জন্য মঙ্গল বয়ে আনে না। সংসদ, মন্ত্রিসভায় এবং প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতির ক্ষমতার মধ্যে ভারসাম্যের রাজনীতির ভিত্তিতেই জাতীয় ঐক্য হতে হবে।’ এ বিষয়ে বিএনপির কোনো নেতা মন্তব্য করেননি।

তবে জামায়াতের নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেছেন, তাদের সঙ্গে বিকল্পধারার রাজনৈতিক সম্পর্ক নেই। তাই তাদের দাবি সম্পর্কে মন্তব্য করার প্রয়োজন দেখছেন না।

 

 

দেশরির্পোট/রবিন


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন