লাইফষ্টাইল

মশা তাড়ান ঘরোয়া উপায়ে

একটু বৃষ্টি আবার গরম, বছরের এই সময়ে গরমটা অতিরিক্তই বাড়িয়ে দিয়ে থাকে। আর গরম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে একটি বিরক্তিকর উপদ্রবও বাড়তে থাকে। আর এই বিরক্তিকর উপদ্রবটি হচ্ছে মশা। মশার কামড় থেকে কী না হয়! ম্যালেরিয়া, ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া… আরও কত কী। তাই একটাও মশা যাতে না কামড়ায়, সব সময় সতর্ক থাকতে হয়। অতিরিক্ত গরম লাগলেও এই মশার উপদ্রবের কারণে মশারির ভেতরে জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠে। মশার ধূপ, মশা মারার স্প্রে কোনও কিছু দিয়েই মশা দূর করা যায় না। তবে খুব সহজেই এই মশার উপদ্রব থেকে মুক্তি পেতে পারেন। আজ শিখে নিন এমনই দুটি প্রাকৃতিক কার্যকরী উপায়, যার মাধ্যমে মশা মুক্ত হবে আপনার ঘর।

• লেবু ও লবঙ্গের ব্যবহার: একটি গোটা লেবু দুই টুকরো করে কেটে নিন। এর পর কাটা লেবুর ভেতরের অংশে বেশ কয়েকটা করে লবঙ্গ গেঁথে দিন। লেবুর মধ্যে লবঙ্গের পুরোটা গেঁথে শুধুমাত্র মাথার দিকের অংশ বাইরে রেখে লবঙ্গ গেঁথে দিন। এর পর লেবুর টুকরোগুলো একটি প্লেটে রেখে ঘরের কোণায় রেখে দিন। ব্যস, এতেই বেশ কয়েকটা দিন মশার উপদ্রব থেকে মুক্তি পেতে পারেন। এই পদ্ধতিতে মশা ঘরের ধারেকাছে ঘেঁসবে না একেবারেই। আপনি চাইলে লেবুতে লবঙ্গ গেঁথে জানালার গ্রিলেও রাখতে পারেন। এতেও মশার ঘরে ঢোকার পথ বন্ধ হবে।

• কর্পূরের ব্যবহার: কর্পূরের গন্ধ মশা একেবারেই সহ্য করতে পারে না। আপনি যে কোনও অষুধের দোকানে বা মুদির দোকান থেকেও কর্পূরের ট্যাবলেট কিনে আনতে পারেন। একটি কর্পূরের টুকরো একটি ছোটো পাত্রতে রেখে সেটি জল দিয়ে পূর্ণ করুন। এর পর এটি ঘরের কোণে রেখে দিন। অল্প সময়ের মধ্যেই ঘর থেকে মশা গায়েব হয়ে যাবে। দু’দিন পর পাত্রের জল পরিবর্তন করুন। পাত্রে রাখা আগের জল ফেলে দেবেন না। এই জল ঘর মোছার কাজে ব্যবহার করলে ঘরে পিঁপড়ের উপদ্রব থেকেও মুক্তি পাবেন।

 

দেশরির্পোট/এএস


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন