জাতীয়

সম্পাদক পরিষদের সঙ্গে বৈঠকে সরকারের তিন মন্ত্রী ও এক উপদেষ্টা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সম্পাদক পরিষদের সঙ্গে বৈঠকে বসেছেন সরকারের তিন মন্ত্রী ও এক উপদেষ্টা। তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় এই বৈঠক শুরু হয়েছে।

বৈঠকে উপস্থিত আছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং প্রধানমন্ত্রীর তথ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। এছাড়া আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক শুরুতে উপস্থিত হতে না পারলেও খুব দ্রুত যোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন বৈঠকে যোগ দেয়া তথ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব আবুয়াল হোসেন।

অপরদিকে সম্পাদকদের মধ্যে আছেন নিউজ টুডের রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ, প্রথম আলোর মতিউর রহমান, ডেইলি স্টারের মাহফুজ আনাম, যুগান্তরের সাইফুল আলম, নিউএজের নূরুল কবির, মানবজমিনের মতিউর রহমান চৌধুরী, কালের কণ্ঠের ইমদাদুল হক মিলন, সংবাদের খন্দকার, মনিরুজ্জামান, বাংলাদেশ প্রতিদিনের নঈম নিজাম, ইনকিলাবের এএমএম বাহাউদ্দিন এবং বণিক বার্তার দেওয়ান হানিফ মাহমুদ।

এ ছাড়া বেলা তিনটায় বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) এবং ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

এরপর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সঙ্গে বৈঠক হবে সরকারের প্রতিনিধিদলের। এর আগে গত বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বহুল আলোচিত ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল পাস হয়েছে জাতীয় সংসদে।

এই আইনের বিভিন্ন ধারা নিয়ে সাংবাদিকদের আপত্তি থাকলেও তা আমলে নেয়া হয়নি। বরং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের বিতর্কিত ৫৭ ধারাকে ভিন্নভাবে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সংযোজন করা এবং ঔপনিবেশিক আমলের ‘অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট-১৯২৩’ এই আইনের ৩২ ধারায় সংযুক্ত করায় তা গণমাধ্যমকর্মীদের মধ্যে নতুন উদ্বেগ তৈরি করেছে।

এদিকে এ আইন পাস হওয়ার পর সম্পাদক পরিষদসহ সাংবাদিকদের সব সংগঠন এর বিরোধিতা করে আসছে।

একই সঙ্গে আইনটি পাস হওয়ায় উদ্বেগ জানিয়ে গত ২২ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে এক বিবৃতিতে ২৯ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচির ঘোষণা দেন সম্পাদক পরিষদ। পরে ২৬ সেপ্টেম্বর তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু স্বাক্ষরিত একটি চিঠি সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদকের কাছে পাঠানো হয়। চিঠিতে মানববন্ধন কর্মসূচি স্থগিত করে সম্পাদক পরিষদকে ৩০ সেপ্টেম্বর তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে বৈঠকে বসার আহ্বান জানান। এর প্রেক্ষিতে সম্পাদক পরিষদ মানববন্ধন স্থগিত রেখে বৈঠকে অংশ নিতে রাজি হয়। তবে সম্পাদক পরিষদের পক্ষ থেকে বলা হয়, আলোচনা ফলপ্রসূ না হলে প্রতিবাদ কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।

 

 

দেশরির্পোট/আজমল

 


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন