স্বাস্থ্য

পরিশ্রম না করায় স্বাস্থ্যঝুঁকিতে ১৪০ কোটি মানুষ: ডব্লিউএইচও

বিশ্বের একচতুর্থাংশের বেশি মানুষ পর্যাপ্ত শরীরচর্চা বা কয়িক পরিশ্রম না করায় স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে আছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

পর্যাপ্ত শরীরচর্চা না করলে হৃদরোগ, টাইপ-টু ডায়াবেটিস এবং ক্যান্সারের মত স্বাস্থ্য ঝুঁকি বাড়ে। বিশ্বের প্রায় ১৪০ কোটি মানুষ এ ঝুঁকিতে আছে জানানো হয়েছে ডব্লিউএইচও’র প্রতিবেদনে।

এতে আরো বলা হয়েছে, বিশ্বজুড়ে পুরুষদের তুলনায় নারীদের মধ্যে শরীরচর্চা করার প্রবণতা কম। যদিও এশিয়ার দুইটি অঞ্চলে এর ব্যতিক্রম দেখা গেছে।

ডব্লিউএইচও গবেষকরা ১৬৮টি দেশে জরিপ চালিয়ে ‘দ্য লানসেট গ্লোবাল হেল্থ’ এর জন্য এ গবেষণা প্রতিবেদন তৈরি করেছেন।

গবেষণায় প্রায় ১৯ লাখ মানুষ অংশ নিয়েছে। যারা তাদের দৈনিক শরীরচর্চার তথ্য গবেষকদের দিয়েছেন।

গবেষণা প্রতিবেদন অনুযায়ী, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের মত উচ্চ আয়ের দেশে ২০০১ সালের তুলনায় শরীরচর্চার হার কমেছে।

ওইসব দেশে ২০০১ সালে জনগণের মধ্যে শরীরচর্চা করার হার ছিল ৩৭ শতাংশ। ২০১৬ সালে যা কমে ৩২ শতাংশ হয়েছে।

নিম্ম আয়ের দেশগুলোতে অবস্থার তেমন কোনো পরিবর্তন হয়নি। উভয় সময়েই এই সংখ্যা ১৬ শতাংশের কাছাকাছি রয়েছে।

পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলো ছাড়া বিশ্বজুড়ে পুরুষদের তুলনায় নারীরা শরীরচর্চা কম করে।

দক্ষিণ এশিয়া, মধ্য এশিয়া, মধ্য প্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা এবং উচ্চ আয়ের পাশ্চিমা দেশগুলোতে পুরুষ ও নারীর মধ্যে শরীরচর্চা করার হারে ব্যবধানও অনেক বেশি।

এজন্য বিভিন্ন প্রচলিত সামাজিক ও ধর্মীয় নিয়ম কানুনকে দায়ী করেছেন গবেষকরা। যেমন, সন্তান যত্নের দায়িত্ব নারীদেরই বেশি নিতে হয় এবং নানা ধর্মীয় কারণে নারীদের জন্য শরীরচর্চা করা কঠিন হয়ে পড়ে।

উন্নত দেশগুলোতে চাকরির ধরন এবং শখের কারণে শরীরচর্চা বা কায়িক পরিশ্রম করার হার কমে যাচ্ছে বলে প্রতিবেদনে দাবি করেছেন গবেষকরা। এছাড়া, ওইসব দেশে গণপরিবহনের তুলনায় গাড়ির ব্যবহার বেড়ে যাওয়াও এর কারণ বলে মনে করেন তারা। অন্যদিকে, নিম্ম আয়ের দেশগুলোতে লোকজন হেঁটে বা গণপরিবহনে চড়ে কর্মস্থলে বেশি যাতায়াত করে।

 

দেশরির্পোট/রবিন


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন