খেলা

জেরার মুখে রোনালদোর সাবেক প্রেমিকারা

জুভেন্টাসের বর্তমান তারকা খেলোয়াড় ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে তার সাবেক প্রেমিকাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে। ধর্ষণের অভিযোগকারী ক্যাথরিন মায়োরগার আইনজীবী লেসলাই স্টোভাল’র বরাতে ‘মেইল অনলাইন’ এক প্রতিবেদনে এমনটি জানিয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, কিম কারডাশিয়ান, প্যারিস হিল্টোন এবং সুপার মোডেল ইরিনা শায়িকসহ অন্যান্য প্রেমিকাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসা হতে পারে।

ধর্ষণে অভিযোগকারী ক্যাথরিন মায়োরগার পক্ষের আমেরকিান আইনজীবি স্টোভাল দাবি করছেন, ২০০৯ সালের জুনে রোনালদো তাকে ধর্ষণ করেছে। এরই প্রেক্ষিতে ফুটবলারের সাবেকদের কিছু জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাই।

৩৪ বছর বয়সী আইনজীবী সানডে মিররকে বলেন, ‘আমি প্রেমিকাদের সঙ্গে কথা বলতে চাই, তারা তার (রোনাল্দো) উদ্দেশ্য জানত কিনা? আমি যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণ করতে চাই যদি আমি প্রয়োজন মনে করি।’

মিসেস ক্যাথরিন মায়োরগার দাবি করছেন, লাস ভেগাসে পালমস ক্যাসিনো রিসোর্টের পেনথাউস স্যুইটে তাকে আক্রমণ (ধর্ষণ) করা হয়।

কিন্তু বুধবার এক টুইট বার্তায় তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করে তিনি লেখেন, ‘ আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দূঢ়ভাবে অস্বীকার করছি। আমি বিশ্বাস করি ধর্ষণ একটি জঘন্য অপরাধ যা সবার বিরুদ্ধে চলে যায়।’

প্রসঙ্গত, ২০০৯ সালে রোনালদোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন ক্যাথরিন মায়োরগা নামের এক নারী। এরপর দীর্ঘ সময় এটি বন্ধ থাকে। কিন্তু হঠাৎ করে ওই চলতি বছরে ওই নারীর অনুরোধে পুনরায় ওই অভিযোগটি তদন্তে নেমেছে পুলিশ। নারীর অভিযোগ ২০০৯ সালে রোনালদো তাকে লাস ভোগাসের একটি হেটেল কক্ষে ধর্ষণ করেছিলেন।

এরপর জার্মান সাময়িকী ডের স্পিগেলে এই অভিযোগের প্রতিবেদন প্রকাশ করার পর তার ‘ভূয়া’ বলে দাবি করেন রোনালদো।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন