রাজনীতি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন আমরা মানি না: ফখরুল ইসলাম

বর্তমান সরকারকে ‘প্রতারক’ আখ্যা দিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন আমরা মানি না। এই সরকারের কোনো আইনই আমরা মানবো না। কারণ যে সংসদে আইন পাস হয়, সেই সংসদের কোনো বৈধতা নেই। এই সংসদ জনগণের প্রতিনিধিত্ব করে না, অবৈধ একটা সংসদ।’

রাজধানীর গুলশানে হোটেল লেক শোর-এ সোমবার বিএনপি আয়োজিত ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮’ শীর্ষক এক মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে সরকার আলোচনা পর্যন্ত করেনি— এমন অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এটা একটা প্রতারক সরকার। কয়েকদিন আগেই সম্পাদকদের সঙ্গে বসে কথা দিলেন যে, আইনের আপত্তি বিষয়ক যে ধারাগুলো আছে তা আলোচনা করে পুনর্বিবেচনা করার চেষ্টা করবেন। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী বিদেশ সফর শেষে এসে বললেন— যেটা আছে ঠিক আছে; যারা মিথ্যা কথা বলে তাদের জন্য এই আইন। কিন্তু বিরোধী দল হিসেবে আমরা ঘরপোড়া গরুর মতো। যেখানে কোনো ঘটনাই ঘটে নাই, সেখানে হাজার হাজার মিথ্যা-গায়েবি মামলা দেওয়া হচ্ছে আমাদের বিরুদ্ধে। তাহলে কোন বিশ্বাসে তাদের ওপর আস্থা রাখা যাবে?’

তিনি বলেন, ‘এই আইনটি শুধু কালো নয়, আরো কালো। এই আইনের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী এই সরকারকে রক্ষার চেষ্টা করেছেন।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘জনগণকে জিম্মি করে, বন্দি করে, তাদের বুকের মধ্যে বন্দুক-পিস্তল রেখে দিয়ে দেশ শাসন কিছুদিনের জন্য করা যায়। সবসময়ের জন্য করা যায় না। হতাশ হবেন না। সংগ্রাম চালিয়ে যাবো। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত, জনগণের মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত, দেশনেত্রীর মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত আমাদের লড়াই চলবে।’

জাতীয় ঐক্যের প্রসঙ্গ টেনে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করতে কাজ শুরু করেছি। অথচ এই কাজটি করার আগেই জনগণ ঐক্যবদ্ধ হয়ে আছে। আজকে প্রতিটি জায়গা থেকে আওয়াজ আসছে— সবাই রুখে দাঁড়ান। এই যে জগদ্দল পাথর গেঁথে বসেছেন তাকে সরান। শুধু আমরা নই, অন্যান্য দলগুলো, সংগঠন, ব্যক্তি একবাক্য বলছে— একটা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন চাই, সংসদ ভেঙে দিতে হবে।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন। সভায় বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকের সম্পাদক, সিনিয়র সাংবাদিকবৃন্দ ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, চীন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আফগানিস্তান, ফিলিস্তিন, রাশিয়া, তুরস্ক, ভিয়েতনামসহ বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকরা উপস্থিত ছিলেন।

 

দেশরির্পোট/রবিন


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন