রাজনীতি

নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতার পরিবর্তন হবে না: ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন ছাড়া ক্ষমতার পরিবর্তন হবে না। বিএনপি ক্ষমতার জন্য ব্যাকুল হয়ে পড়েছে। তারা অচিরেই কর্পূরের মতো উড়ে যাবে। বিএনপি একটি আত্মস্বীকৃত উন্মাদ, দেউলিয়া ও দুর্নীতিবাজ দল। তাদের কাছে গণতন্ত্র নিরাপদ নয়।

রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ (কেআইবি) মিলনায়তনে সোমবার অনুষ্ঠিত ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাসন আমল : শিল্প ও বাণিজ্য ক্ষেত্র’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গত ১০ বছরে বিএনপি আন্দোলন করতে পারেনি। এখন ১ মাসে কী পারবে তা দেখা যাবে। তারা অনেক বছর ধরে ঈদের আগে সরকার পতনের হুমকি দিয়েছে। ইতিমধ্যে ২০ ঈদ চলে গেছে। আবার ২০১৯ সালে ঈদ আসবে। নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য তারা জাতীয় ঐক্য করেছে। তেল আর জল যেমন মেশে না, তেমনি জগাখিচুরির এ ঐক্য দিয়ে কিছু হবে না। কোনো আন্দোলন হবে না, জনগণও এ আন্দোলনে আসবে না।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলের সমালোচনার জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল অপরাধের জন্য ডিজিটাল নিরাপত্তা থাকতে হবে। আওয়ামী লীগ অফিসে এক নারীকে নিয়ে ফেসবুকে ছড়ানো গুজব-সন্ত্রাস ধরা পড়েছে। এখন গুজব-সন্ত্রাস আন্দোলনের চেয়েও বেশি কার্যকর। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যারা অপরাধ করছে না, তাদের তো এ আইন নিয়ে ভয়ের কিছু নেই।

দলীয় ভুল-ত্রুটির কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, ‘আমরা ভুল-ত্রুটি সংশোধন করছি। আমাদের সময় রফতানি ভালো, জিডিপির অবস্থা ভালো, মাথাপিছু আয় বেড়েছে। ক্রিকেটে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তাদের পরমাণু বোমা আছে, এ বোমার আমাদের কোনো প্রয়োজন নেই।’

অনুষ্ঠানের শুরুতে তিনি ছাত্রলীগ কর্মীদের হাততালি না দেওয়ার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, এটা কোনো দলীয় সমাবেশ না। এটা একটা সেমিনার। তিনি সেমিনারের আয়োজকদের উদ্দেশ্যে বলেন, আগামী এক মাসের মধ্যে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা হবে, এখন এসব সেমিনার না করে নির্বাচনকেন্দ্রিক সমাবেশ করতে হবে। এখন ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে আলোচনা শোনার সময় নেই। এখন ব্যস্ততার মধ্য দিয়ে সময় যাচ্ছে। এ সময় তিনি পরিবহন শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহারের আহ্বান জানান।

এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক বিষয়ক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার বেসরকারি খাত উন্নয়নবিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্যবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য সচিব মো. আব্দুছ ছাত্তার প্রমুখ। সেমিনারে মূল্য প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান।

এইচ টি ইমাম বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন স্বপ্নদ্রষ্টা মানুষ। সদ্য স্বাধীন দেশের ধ্বংসস্তূপের মধ্যে তিনি দেশের রাষ্ট্রীয় ও প্রশাসনিক কাঠামো পুনর্গঠন করেন। দেশের সবকিছু তার মাধ্যমেই যাত্রা শুরু করে। বঙ্গবন্ধু ব্যবসা-বাণিজ্য ও শিল্প ব্যবস্থাপনা নতুন করে ঢেলে সাজান।

ড. আতিউর রহমান বলেন, মাত্র সাড়ে ৩ বছরের ক্ষমতার মধ্যে নানা ষড়যন্ত্রের মধ্যে বঙ্গবন্ধু একটি শক্তিশালী অর্থনৈতিক ভিত রচনা করেছিলেন। তিনি কৃষি ও শিল্পকে একসঙ্গে এগিয়ে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল।

 

 

দেশরির্পোট/রবিন


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন