বিনোদন

ষ্টার সিনেপ্লেক্সের সবথেকে ব্যাবসা সফল ছবি শিকারী

শাকিব খানের প্রথম যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘শিকারী’ মুক্তি পায় ২০১৬ সালের ৭ জুলাই। কলকাতার অভিনেত্রী শ্রাবন্তীর সঙ্গে প্রথম বারের মত অভিনয় করেন শাকিব। এই ছবিতেও শাকিব পর্দায় তাঁর লুক নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা চালান। বেশ সফলও হন তিনি। যার ফলে বক্সঅফিসে ছবিটি ব্লকবাস্টার তকমা লাভ করে। জয়দীপ মুখার্জির পরিচালনায় ছবিটি ৫ কোটি ৫৫ লাখ টাকা আয় করে। এবার সে সিনেমাকেই ২০১৬ সালের সবথেকে ব্যবসা সফল ছবি বলে ঘোষণা দিল ষ্টার সিনেপ্লেক্স।

গতকাল সোমবার ছিলো স্টার সিনেপ্লেক্সের ১৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। এইদিনটিতে সিনেপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ আয়োজন করেছিলো জমকালো এক অনুষ্ঠানের। জনপ্রিয় সিনেমা থিয়েটারকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে হাজির হয়েছিলেন নানা অঙ্গনের তারকা ও বিনোদন সাংবাদিকরা। সেখানেই আসে এমন ঘোষণা।আয়োজনের এক পর্যায়ে এই ১৪ বছরে মুক্তি পাওয়া বাংলা সিনেমার মধ্যে সেরা ব্যবসা সফল ছবিগুলোকে পুরস্কার দেয়া হয়। স্টার সিনেপ্লেকের পথচলায় বাংলা সিনেমার অবদানকে মূল্যায়নের লক্ষেই এই স্বীকৃতি দেয়া হয়।

বলা হয়, স্টার সিনেপ্লেক্সের পথচলার শুরু থেকেই রিয়াজ ও ফেরদৌসের সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। অনেক ছবি তাদের ব্যবসা সফলও হয়েছে। সাম্প্রতিককালে মুক্তি পাচ্ছে শাকিব খানের সিনেমাও। তারমধ্যে ২০১৬ সালে স্টার সিনেপ্লেক্সের সেরা ব্যবসা সফল ছবি হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে শাকিব খানের ‘শিকারী’।

অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন ঢালিউড কিং শাকিব খান, ওমর সানী, রিয়াজ, ফেরদৌস আহমেদ, চিত্রনায়িকা পপি, জয়া আহসান, নাবিলা, প্রযোজক আবদুল আজিজসহ অনেকেই। অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে ওমর সানী, রিয়াজ, ফেরদৌস ও শাকিব খানকে মঞ্চে ডেকে নেন বর্তমানের আলোচিত উপস্থাপক ও অভিনেতা শাহরিয়ার নাজিম জয়। তার আমন্ত্রণে একে একে মঞ্চে যান বাংলা সিনেমার চার নায়ক। তারা মঞ্চে কথাও বলেন সিনেপ্লেক্সের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও দেশের সিনেমা নিয়ে। চার নায়ককে একসঙ্গে দেখে হাততালিতে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন উপস্থিত অতিথিরা।

এসময় শাকিব খান বলেন, ‘শিকারি’র শুটিংয়ের সময় আমি যখন বাংলাদেশ থেকে পশ্চিমবঙ্গে গিয়েছিলাম তারা জানতো আমি বাংলাদেশের নাম্বার ওয়ান সুপারস্টার। তখনই আমি দেখেছি, সেখানকার টেকনিশিয়ান থেকে শুরু করে সবাই আমার দিকে তাকিয়ে ছিল। আমি কি করি!’’

তিনি আরও বলেন, ঠিক ওই সময় আমার ভেতরে কাজ করেছে, আমি না পারলে আমার ইন্ডাস্ট্রি ফেল করবে। ভেবেছিলাম আমি যদি সেরাটা না দিতে পারি, তবে লজ্জিত হবে আমার ইন্ডাস্ট্রি। অপমানিত হবে আমার ইন্ডাস্ট্রি। আমার ভক্তরা আমাকে ভুল বুজবে। এত বছরের ক্যারিয়ারে আমি যতটুকু শিখেছি অভিনয়, লুক চেঞ্জ, ফিটনেস সবদিক দিয়ে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি আমার ইন্ডাস্ট্রির সম্মান রক্ষার জন্য।

শাকিব খান বলেন, আমি আমার ইন্ডাস্ট্রিকে সামনের দিকে এগিয়ে নেয়ার জন্য কাজ করি। আমি যতদিন বেঁচে আছি ততোদিন আমার ইন্ডাস্ট্রির জন্য কাজ করবো।

 

 

 


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন