শিক্ষা-ক্যাম্পাস

৪ কোটি শিক্ষার্থী বিনামূল্যে ৩৫ কোটি নতুন পাঠ্যবই পাবে

প্রতিবছরই বইয়ের মান বাড়ানোর চেষ্টা অব্যাহত আছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ‘পাঠ্যক্রমের পরিবর্তন ও উন্নয়ন একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। গতবছর নবম ও দশম শ্রেণির ১২টি পাঠ্যবই নতুন আঙ্গিকে প্রকাশ করা হয়েছে। এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে।’

২০১৯ সালে ৪ কোটি শিক্ষার্থীর মধ্যে প্রায় ৩৫ কোটি নতুন পাঠ্যবই বিতরণ করা হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী।
মঙ্গলবার রাজধানীর মাতুয়াইলে বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক ছাপার কাজে নিয়োজিত বিভিন্ন বেসরকারি ছাপাখানা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘প্রায় ১১ কোটি বই ইতোমধ্যে উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। প্রতিদিনই জেলা-উপজেলায় বই পাঠানো হচ্ছে। ১৪ ডিসেম্বরের মধ্যে সকল বই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পৌঁছে যাবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘পহেলা জানুয়ারির শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক তুলে দিতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। প্রতি বছরের মতো এবারও প্রাক-প্রাথমিক থেকে নবম শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের হাতে ২০১৯ সালের ১ জানুয়ারি বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক তুলে দেয়া হবে। ২০১০ সাল থেকে নববর্ষের উপহার হিসেবে শিক্ষাবর্ষের প্রথমদিনে শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে নতুন বই দেয়া হচ্ছে। এবারও এর কোন ব্যত্যয় হবে না।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্য ব্রেইল বই এবং ৫টি নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠীর শিক্ষার্থীদের জন্য তাদের নিজ ভাষায় বই ছাপা হয়েছে।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘এবার বইয়ের ছাপার মান অনেক ভাল হয়েছে। বইয়ের মান প্রতিবছরই উন্নত হচ্ছে।’

ছাপার কাজ বাকী নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের বছর সত্ত্বেও শিক্ষার্থীরা ঠিক সময়ে বই পাবে। ১ জানুয়ারি বই দিতে কোন সমস্যা হবে না।’

এসময় উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব নাজমুল হক খান, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের (এনসিটিবি) চেয়ারম্যান প্রফেসর নারায়ন চন্দ্র সাহা প্রমূখ।

 

দেশরির্পোট/রবিন


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন