বিনোদন

বন্ধু তোকে খুব মিস করি

আজ বন্ধু দিবস। প্রতি বছর আগস্টের প্রথম রোববার এই দিবসটি পালিত হয়। পরিবারের পাশাপাশি যে শক্তির বলয় আমাদের প্রতিনিয়ত নানা কিছু থেকে বাঁচিয়ে নিয়ে আসে, তা হল বন্ধুরা। সুখ হোক কী দুঃখ, এই সুরক্ষা কবজ যেন কোনও সময় আমাদের সামনে থেকে নরে না। তাই তো এত হতাশা, এত কষ্টের মাঝেও মাথা তুলে দাঁড়াতে পারি। এত দুঃখের মাঝেও হাসিটা হারিয়ে যায় না। মিডিয়ায় একসঙ্গে কাজ করতে এসে অনেকের মাঝে গড়ে ওঠে বন্ধুত্বের নির্মল সম্পর্ক। নানা আলোচনা-সমালোচনা ও গুঞ্জন এড়িয়ে সে সম্পর্ক শক্ত হয়ে ওঠে একদিন। মিডিয়ার  তারকাদের এমনই কিছু বন্ধুত্বের গল্প নিয়ে সাজানো হয়েছে আজকের বিশেষ আয়োজন।

নিরব- বন্ধুত্ব শুধু একটা শব্দ নয় , শুধু একটা সম্পর্ক নয় | এটা একটা নীরব প্রতিশ্রুতি : ‘ আমি ছিলাম, আমি আছি এবং আমি থাকব’।তবে ঢাকাই চলচ্চিত্রে আমার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু ইমন।এখন ও তার সাথে সম্পর্ক অটুট রয়েছে । এখনো আমরা প্রচুর দুষ্টুমি করি।

ইমন- তারকা হওয়ার আগের বন্ধুত্ব আর এখনকার বন্ধুত্বের মাঝে আসলে খুব বেশি তফাৎ নেই। আগে আমার বন্ধুদের সঙ্গে যেমন আনন্দ করতাম, তাদের যেমন মিস করতাম, এখনও ঠিক তেমনই করি। জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটা অংশই হলো আমার বন্ধুরা। তাদের সঙ্গে দেখা হলে এখনো প্রচুর মজা করি। তবে ঢাকাই চলচ্চিত্রে আমার সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু নীরব। শোবিজ অঙ্গনে কাজের শুরু থেকেই আমাদের বন্ধুত্ব। এ সম্পর্ক অটুট রয়েছে এখনো। আমরা প্রচুর দুষ্টুমি করি। তর্কও করি প্রচুর।

টয়া- বন্ধুত্বে জায়গাটা নিশ্বাস প্রশ্বাস নেওয়ার জায়গা বলে মনে করেন মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া। কাছের বন্ধুরা পরিবার সম্পর্কেও জানে। তারা কাজের খবরও রাখে। আসল বন্ধুরা বিপদেও সময় এগিয়ে আসে।

মানুষের জীবনে একজন হেল্পফুল বন্ধু খুবই দরকার। সে মানুষটা পরিবারেরও হতে পারে, আবার পরিবারের বাইরেরও হতে পারে। মিডিয়ায় আমার কাছে বন্ধু সাফা কবির, তৌসিফ মাহবুব ও সিয়াম আহমেদ। আমাদের একটা আলাদা জগত আছে। একে অন্যকে খুব মিস করি। সিয়ামের সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত সম্পর্কও ভালো। মিডিয়ায় অনেক মানুষের সঙ্গে আমার সম্পর্ক রয়েছে তবে এই তিনজনের জায়গা কেউ নিতে পারেনি, আর পারবেও না।

সুজানা- শোবিজ অঙ্গনের তারকাদের মধ্যে অন্যরকম বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক হচ্ছে মডেল অভিনেত্রী সুজানা ও অপু বিশ্বাসের মধ্যে। দীর্ঘদিন ধরেই বন্ধুত্ব তাদের। সময় হলেই একে অপরে আড্ডায় মেতে ওঠেন। তাই সুজনা বলেন, অপুর সঙ্গে দীর্ঘদিনের সম্পর্ক আমার। এখন এটা পারিবারিক সম্পর্কের মতোই হয়ে গেছে। সুখে দুঃখে একে অপরের পাশে থাকি আমরা।

বিপাশা- উঠতি নায়িকাদের মধ্যে মিষ্টি জান্নাত ও আইটেম কন্যা বিপাশা কবিরের সঙ্গে রয়েছে চরম বন্ধুত্ব। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে ভক্তরাও জানেন এটি। সময় পেলেই ঘুরতে যান একসঙ্গে। আড্ডা আর মাস্তিতে কাটিয়ে দেন সময়। মন খারাপ হলেও একে অপরের সঙ্গে শেয়ার করেন। এ তালিকায় আরেক উঠতি নায়িকা দিপালিও রয়েছে।

সনি রহমান- পৃথিবীতে জন্ম গ্রহন করার পর পরিবার মা, বাবা, ভাই বোন এরা হয় সবচেয়ে আপন,জীবন এর শুরুর বন্ধু মা ও বাবা।তারপর আমরা আস্থে আস্থে বড় হতে থাকি বাড়তে থাকে আমার পরিধি।আমরা বাইরের জগৎ সম্পর্কে জানতে বুঝতে শুরু করি।শুরু হয় স্কুল জীবন বন্ধুতের শুরুটা অনেকটা এখান থেকেই।পর্যায়ক্রমে জীবন সামনের দিকে এগুতে থাকে আর বন্ধুদের সংখ্যা ও বাড়তে থাকে।আমরা জন্ম নেয়ার পর যেমন জানিনা আমাদের শেষ কোথায় তেমনি কখন যে কে কোথা থেকে এসে ভাল বন্ধু হয়ে যাবে তাও আমরা জানিনা।মাতৃত্বের বন্ধনের মতই বন্ধুত্বের সম্পর্ক আসলে।বয়স বাড়ার সাথে সাথে আর জীবন এর তাগিদে আমরা অনেক কিছু ভূলে যাই কিন্তু স্কুল লাইফ আর সেই সময় এর বন্ধুদের ভূলা যায় না।তবে আমি মনে করি বাবা,মা,ভাই বোন এর পরে ভাল বন্ধু কোন বিবাহীত স্বামীর তার স্ত্রী।আর তার ভালবাসার মানুষ।বন্ধুত্ব সম্পর্ক নিজের রক্তের মানুষের চেয়েও অনেক সময় বেশি হয়।আমার কোন ভাই নেই তাই আমার চলার পথের প্রতিটি মানুষই আমার ভাই ও বন্ধু ।

তানিন সুবহা- তারকা হওয়ার আগের বন্ধুত্ব আর এখনকার বন্ধুত্বের মাঝে আসলে খুব বেশি তফাৎ নেই।আগে যেমন আমি আমার বন্ধুদের সাথে আনন্দ করতাম, তাদের যেমন মিস করতাম, এখনও ঠিক তেমনই করি। জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটা অংশই হলো আমার বন্ধুরা। তাদের সঙ্গে দেখা হলে এখনো প্রচুর মজা করি।বন্ধু হচ্ছে যে দুঃখ মুছে সুখের জায়গা তৈরি করে দেয়।ভূল বুঝাবুঝির মাঝে ও যে আমাকে আগলিয়ে রাখে সেই প্রকৃত বন্ধু।একটি হৃদয়ে আরেকটি হৃদয় আমরণ লালন করে চলা, বন্ধুত্বের এই সম্পর্ক সীমাহীন।

অধরা খান- বন্ধু মানে অনেক-অনেক কিছু। আস্থা-বিশ্বাস আর মন ভালো করার সবচেয়ে নিরাপদ জায়গা।পরিবারের পাশাপাশি যে শক্তির বলয় আমাদের প্রতিনিয়ত নানা কিছু থেকে বাঁচিয়ে নিয়ে আসে, তা হল বন্ধুরা। কোন কোন মানুষ আছে যারা অন্যকে খুব ভালোবেসে আপন করতে পারে। তারা ভালো বন্ধু হয়। শোবিজ অঙ্গনে আমার ভালো বন্ধু সুমিত সেনগুপ্ত।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন