লাইফষ্টাইল

ভেষজ উপাদান শ্যাম্পুর চেয়েও বেশি উপকারি

লাইফস্টাইল প্রতিবেদক || চুল পরিষ্কার করতে শ্যাম্পুর ব্যবহার অহরহ। কিন্তু নামী-দামী ব্র্যান্ডের শ্যাম্পু ব্যবহার করেও কখনও কখনও চুল হয়ে পড়ছে প্রাণহীন আর অনুজ্জ্বল। ফলে সুফল মিলছে না শ্যাম্পুতেও। আর তাই শ্যাম্পু সরিয়ে রাখুন আর যত্নের দায়িত্ব তুলে দিন কিছু ভেষজ উপাদানের হাতে। ভেষজ উপাদান শ্যাম্পুর চেয়েও বেশি উপকারি। তাই শ্যাম্পু ছাড়াই চুলের যত্ন নিন, ভেষজ উপাদানের ব্যবহারে।

ক্যামোমিল চাঃ

ক্যামোমিল চা স্বাস্থ্যের জন্য যেমন উপকারী, তেমনি চুলের জন্যও। এক ধরনের ফুলের নির্যাস থেকে তৈরি এই বিশেষ চাপাতা মাথার রুক্ষ ত্বককে সতেজ করে এবং চুল মোলায়েম করে তুলতে পারে। এজন্য ক্যামোমিল চা ফুটিয়ে ছেঁকে পানিটুকু শ্যাম্পুর মতো চুলে ঘষে মেখে ধুয়ে নিন। অথবা পানিতে চা পাতা ভিজিয়ে রেখে, সেই পানি দিয়েও চুল ম্যাসেজ করতে পারেন। যে পদ্ধতিই অনুসরণ করুন, উপকার পাবেন নিশ্চিত।

আমলকিঃ

ভেষজ হিসেবে আমলকির গুণাবলীর তালিকা দীর্ঘ। চুলের যত্নেও এই ভেষজ ফলটি তুলনাহীন। আজকাল তেল কিংবা শ্যাম্পু থেকে শুরু করে চুলের বিভিন্ন প্রসাধনেও ব্যবহৃত হচ্ছে আমলকি। এতে আছে ভিটামিন সি। যা মাথার ত্বকে তৈরি যে কোন ইনফেকশন সারাতে সহায়তা করে। চুলকে করে তোলে সুন্দর ঝরঝরে। খুশকির দৌরাত্ম্য দমনেও আমলকি উপকারি।আমলকি কেটে দুধে ভিজিয়ে রাখুন ঘণ্টা কয়েক। ভিজিয়ে রাখা আমলকি বেটে পেস্ট তৈরি করুন। তারপর সেই পেস্ট চুলে বিলি কেটে কেটে একেবারে চুলের গোড়ায় ঘষে ঘষে মাখুন। এক ঘণ্টা রেখে দিন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। পারলে আমলকির পেস্টের সঙ্গে মেহেদি পাতাও যোগ করতে পারেন। আরো ভালো চুল পাবেন।

লেবুঃ

চুলের যত্নে লেবুও ভীষণ কার্যকর। ক্লিনজার হিসেবে লেবু খুব ভালো কাজ করে। মাথার ত্বকের ব্যাকটেরিয়া দূর করতেও লেবু সাহায্য করতে পারে। এজন্য এক মগ পানিতে একটি লেবু রস চিপে নিন। সেই পানি চুলে ভালো করে লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। তৈলাক্ত চুল ঝরঝরে করে তুলতে লেবুর রসের তুলনা নেই।

যেহেতু বাজারের যেকোনো পণ্য তৈরি হয় কেমিক্যালের ব্যবহারে আর সে সকল কেমিক্যালের ব্যবহারে চুলের অবস্থা হয়ে পড়ে নাজেহাল। তাই চুলের যত্নের বিষয়টিতেও ভেষজ উপাদানের উপর নির্ভর করাই ভালো। ভেষজ উপাদানের ব্যবহারে আপনার চুল হবে মসৃণ আর ঝরঝরে।

 

 

দেশরির্পোট/রবিন


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন