আইন-আদালত

গাজীপুরে ব্যারিস্টার মইনুলের বিরুদ্ধে ২০ কোটি টাকার মানহানি মামলা

সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলে মন্তব্য করে কারাবন্দি সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের বিরুদ্ধে এবার গাজীপুর আদালতে ২০ কোটি টাকার মানহানির মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার গাজীপুরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৩ এ মামলাটি দায়ের করেন দৈনিক বঙ্গজননী পত্রিকার সহসম্পাদক ও গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের বাসন থানার নলজানী এলাকার মৃত আব্দুল আওয়ালের ছেলে আতিক মাহমুদ।

বাদীপক্ষের আইনজীবী ও গাজীপুর বারের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ওই আদালতের বিচারক মাহবুবা আক্তার মামলাটি আমলে নিয়ে সদর থানার ওসিকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন গত ১৬ অক্টোবর বেসরকারি টেলিভিশনের টকশোতে সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে ‘চরিত্রহীন’ বলায় সমগ্র নারী জাতি অপমাণিত হয়েছে এবং নারীদের মানহানি হয়েছে। এই মন্তব্য বাংলাদেশের প্রচলিত আইনে শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

এ ঘটনার প্রেক্ষিতে তিনি ২০ কোটি টাকার মানহানির এই মামলাটি দায়ের করেছেন বলে মামলার আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাক জানান।

উল্লেখ্য, গত ১৬ অক্টোবর রাতে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের টকশোতে ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে জামায়াতের প্রতিনিধি বললে তিনি সাংবাদিক মাসুদা ভাট্টিকে বলেন ‘আপনাকে চরিত্রহীন বলে মনে করতে চাই’ বলে মন্তব্য করেন।

এ ঘটনায় মাসুদা ভাট্টিসহ নারী সাংবাদিকরা মইনুল হোসেনকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান।

মইনুল হোসেনের মন্তব্যকে নারী সমাজের জন্য অবমাননাকর দাবি করে একই অভিযোগে তার বিরুদ্ধে জামালপুরের আদালতেও মামলা করেন একজন নারী। যদিও ওই দুটি মামলায় তিনি উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেন।

এ ছাড়াও একই ঘটনায় কুড়িগ্রাম ও রংপুরের আদালতেও পৃথক মামলা হয়। এর মধ্যে রংপুরের মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

পরে গত ২৩ অক্টোবর মইনুল হোসেনকে আদালতে হাজির করা হলে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট কায়সারুল ইসলাম।

এরপর সেদিন বিকালে ঢাকার কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে। সেখানে মইনুলকে সাধারণ হাজতির মতো রাখা হয়।

পরে এক রিট আবেদনের শুনানি নিয়ে কারাগারে থাকা ব্যারিস্টার মইনুলকে প্রথম শ্রেণির সুবিধা দিতে কারা কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। আদালতের নির্দেশের পর সোমবার বিকালে কারা কর্তৃপক্ষ তাকে প্রথম শ্রেণির বন্দি সুবিধা (ডিভিশন) দেয়।

 

 

দেশরির্পোট/আরাফাত


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন