সারাবিশ্ব

পাক-ভারতও ‘এক হবে’, আশাবাদী মোদি

পাকিস্তান সীমান্তে কারতারপুর সাহিব করিডোর তৈরি প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে ভারতের মন্ত্রিসভা।

বৃহস্পতিবার এ অনুমোদন দেয়া হয়। পরদিন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই করিডোরকে জার্মানির বার্লিন ওয়ালের পতনের সঙ্গে তুলনা করেন বলে খবর দিয়েছে এনডিটিভি।

১৯৮৯ সালে ভেঙে ফেলার আগ পর্যন্ত দুই জার্মানিকে বিভক্ত করে রেখেছিল ওই ওয়াল।

বার্লিন ওয়াল ভেঙে ফেলা সম্ভব হলে প্রস্তাবিত কারতারপুর করিডোরও ভারত ও পাকিস্তানের মানুষের মধ্যে সেতুবন্ধন হিসেবে কাজ করবে বলে মন্তব্য করেন মোদি।

‘কেউ কি কখনও ভেবেছিল বার্লিনের দেয়াল ভাঙ্গা হবে? গুরু নানক দেবের আশীর্বাদে এই কারতারপুর করিডোরও হয়তো দু’দেশের মানুষের মধ্যে সেতু হিসেবে কাজ করবে,’ দিল্লিতে গুরুপুরব উৎসবে অংশ নেয়ার সময় বলেন তিনি।

শিখ ধর্মের প্রতিষ্ঠাতা গুরু নানক প্রয়াত হন ১৫৩৯ সালে। প্রয়াণের আগে ১৮ বছর কারতারপুর সাহিবে ছিলেন তিনি। সে কারণেই কারতারপুর সাহিব শিখদের তীর্থস্থান। বর্তমানে এটি পাকিস্তানের পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের নারোয়াল জেলার মধ্যে পড়েছে।

বহুদিন ধরেই ভারতের পাঞ্জাবের গুরুদাসপুর জেলার ডেরা বাবা নানকের সঙ্গে কারতারপুর সাহিবকে একটি করিডোরের মাধ্যমে সংযুক্ত করার দাবি জানিয়ে আসছিল শিখরা।

২০১৯ সালে গুরু নানকের ৫৫০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে কারতারপুর করিডোর খুলে দিতে সম্মত হয়েছে পাকিস্তান সরকার।

১৯৬১ সালে নির্মিত বার্লিন ওয়াল ৯ নভেম্বর, ১৯৮৯ সালে ভেঙে সমাজতান্ত্রিক ও পুঁজিবাদী জার্মানি একত্রিত হয়ে বর্তমান জার্মানির রুপ নেয়।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন