বিনোদন

বরফ গলতে শুরু করেছে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের মনে!

শাকিব-অপুর বিবাহ বিচ্ছেদের পর আর তাদের দেখা যায় না একই ফ্রেমে কিংবা পর্দায়। শাকিব অপুর রয়েছে একটি সন্তান আর তাদের সন্তানের জন্য বাবা মায়ের দূরত্ব থাকা স্বত্বেও পুত্র আব্রামের শিক্ষাদিহ্মায় সব রকম ব্যাবস্থা করে যাচ্ছেন। তাদের সন্তানের জন্য বার বার দেখা মিলছে । তাদের মনে বরফ গলতে শুরু করে দিয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্র দাবি করেন।

ঢাকায় সিনেমার এক সময়ের জনপ্রিয় জুটির নাম ছিল শাকিব-অপু। জনপ্রিয় এই জুঁটি দীর্ঘ দশ বছর রুপালী পর্দা কাপিয়েছেন। একটা সময় ছিল যখন শাকিব-অপু জুটি কোন সিনেমা মুক্তি পেলে হল মালিকেরা তা স্বাদরে নিয়ে চালাতো শুধুই হল মালিকেরা না প্রযোজক পরিচালক সবাই তখন শাকিব-অপু জুঁটি নিয়ে কাজ করতে চাইতো।

শাকিব-অপু একটানা রুপালী পর্দায় ৭১টি চলচ্চিত্র দর্শকদের উপহার দিয়েছেন এবং তাদের সব সিনেমা ছিল সুপারহিট সহ ব্লকবাস্টারের মতো। জনপ্রিয় এই জুটি একাধারে কাজ করতে দুজন দুজনের প্রেমে পড়ে যায় এবং দুজনে ভালোবেসে ২০০৮ সালে বিয়ে করেন তারা। তাদের বিয়ের কথা গোপন ছিল আট বছর।

২০১০সালে জাকির হোসেন রাজুর ‘ভালোবাসলে সবার সাথে ঘর বাঁধা যায় না’ সিনেমায় তাদের অভিনয় ছিল দারুন মুগ্ধতা। উক্ত বছরে এই সিনেমাটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরুষ্কার অর্জন করে। কিন্তু জনপ্রিয় এই জুটিকে বছর দুই আর দেখা যায়নি একই সংগে পর্দায়।

চলতি বছর বারিধারার একটি স্কুলে ভর্তি করানো হয়েছে শাকিব-অপুর একমাত্র পুত্রকে। বাবা-মার হাত ধরে স্কুলে যাওয়া আসা করে তাদের পুত্র আব্রাম খান জয়। একদিন অপু তো একদিন শাকিব নিয়ে যায়। এটাই এখন অপু- শাকিবের বড় দায়িত্ব। খুব বেশি সৌভাগ্য হয়নি বাবা-মায়ের সঙ্গে কাটানো তার।

অপু বলেন, বাবা-মার কাছে যেমন সন্তান অমূল্য রতন তেমনি সন্তানের হৃদয়েও বাবা-মার ছবি হয়ে থাকে চির অমলিন। আব্রাম যখনই স্কুলে গিয়ে একসঙ্গে বাঁধানো আমাদের ছবিটি দেখবে তখন আমাদের আর মিস করবে না সে। আমরা তিনজনেই এমন মুহূর্তের জন্য আনন্দিত’।

সম্প্রতি শাকিব-অপুকে অনেকদিন পর একই ফ্রেমে দেখা দিয়েছেন। গত ১৩ ডিসেম্বর সকালে শাকিব আর অপুর হাত ধরে আব্রাম গেল স্কুলে। একসঙ্গে তুললেন ছবি। আর সেই ছবি এখন স্কুলের দেয়ালে শোভা পাচ্ছে।

বাচ্চাদের খুশির জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নেয় বাবা-মায়ের সঙ্গে তোলা প্রতিটি বাচ্চার ছবি স্কুলে টাঙিয়ে রাখা হবে। যাতে বাবা-মা সম্পর্কে বাচ্চার শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা বহু গুণে বেড়ে যায়।

২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর পৃথিবীতে আলোর মুখ দেখার পর ২০১৭ সালের ১৪ এপ্রিল মানে পয়লা বৈশাখ বাবা-মায়ের সঙ্গে এক ফ্রেমে মানে একই ছবিতে বন্দী হয়েছিল তারা।

 

 

সিএসজি


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

Tags

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন