বিনোদন

ইফতেখারুল আলম আর নেই

কিংবদন্তি চলচ্চিত্র প্রযোজক ইফতেখারুল আলম আর নেই। শনিবার দিবাগত রাতে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। (ইন্নানিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত বিভিন্ন সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯১ বছর।

তার হাত ধরেই ১৯৬৪ সালে তৎকালীন পাকিস্তানে প্রথম রঙিন ছবি ‘সঙ্গম’ নির্মিত হয়। যার পরিচালক ছিলেন জহির রায়হান। তার হাত ধরে ইন্ডাস্ট্রি পেয়েছে অনেক প্রখ্যাত সিনেমা, জন্ম নিয়েছেন অনেক প্রযোজক। ষাট দশক থেকেই নামি দামি পরিচালক ও তারকা শিল্পীরা তার প্রযোজনায় কাজ করে পেয়েছেন নাম-যশ-খ্যাতি। তার অভাব কোনোদিন পূরণ করতে পারবে না এই দেশের চলচ্চিত্রাঙ্গন।

চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিবেশক এবং প্রদর্শক ইফতেখারুল আলমের মৃত্যুতে শোক জানাতে গিয়ে এভাবেই তার সম্পর্কে কথা বলছিলেন নন্দিত অভিনেতা আহমেদ শরীফ। ইফতেখারুল আলম সম্পর্কে আহমেদ শরীফের ফুফা। কিংবদন্তি প্রযোজক ইফতেখারুল আলম। সিনেমার মানুষদের কাছে তিনি ইফতেখারুল আলম কিসলু নামে পরিচিত।

ব্যক্তিজীবনে তিনি আহমেদশ শরীফের ফুফু বেগম খোরশিদা আলমকে বিয়ে করেন। বেশ কয়েক বছর আগে স্ত্রীকে হারিয়েছিলেন এই প্রযোজক। আহমেদ শরীফ জানান, আজ রোববার (৬ জানুয়ারি) বাদ জোহর গুলশান ২- এ অবস্থিত আজাদ মসজিদে মরহুমের জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর বনানী কবরস্থানে তাকে সমাহিত করা হবে।

আহমেদ শরীফ বলেন, বলা চলে পাকিস্তানে চলচ্চিত্রের শুরু থেকেই আমার ফুফা নিজেকে এই অঙ্গনে জড়িয়ে রেখেছিলেন। তিনি স্বাধীনতাপুর্ব সময়ে এদেশের সর্ববৃহৎ প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘স্টার কর্পোরেশন’ তৈরি করে সিনেমা বানিয়েছেন। তার হাত ধরে অনেক প্রযোজক এসেছে। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকে তিনি যা দিয়েছেন তা কোনোদিন ভুলবার মতো নয়।তার জন্য সবার কাছে দোয়া চাই যেন আল্লাহ আমার ফুফাকে জান্নাত দান করেন।

 


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন