বিনোদন

মুক্তি পাচ্ছে নিরবের ‘নিষিদ্ধ’ সিনেমা ‘বাংলাশিয়া’

‘বাংলাশিয়া’ নামে মালয়েশিয়ার একটি সিনেমায় পাঁচ বছর আগে অভিনয় করেছিলেন বাংলাদেশের চিত্রনায়ক নিরব হোসেন। ছবিটির শুটিং টানা ৪২ দিন করে শেষ হয়। এরপর ছবিটির ট্রেলারও প্রকাশিত হয়। জাপানের একটি চলচ্চিত্র উৎসবে ছবিটি প্রদর্শিত হয়। এরপর ছবিটির ওপর মালয়েশিয়ার সরকার প্রদর্শনী নিষিদ্ধ করে। শুধু মালয়েশিয়ায় নয়, বিশ্বের কোথাও ছবিটি প্রদর্শন করা যাবে না এরকম একটা আইন হয়।

এবার সব আইনি জটিলতার অবসান কাটিয়ে নিরব অভিনীত ছবিটি মালয়েশিয়ায় মুক্তি পেতে যাচ্ছে। আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি মালয়েশিয়ার বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে তিন ভাষায় নির্মিত এই ছবিটি মুক্তি পাবে। ছবিটির প্রচারণায় অংশ নিতে ২৫ ফেব্রুয়ারি মালয়েশিয়া যাচ্ছেন নিরব। পরদিন ছবির অভিনয়শিল্পী, কলাকুশলী আর আমন্ত্রিত অতিথিদের সঙ্গে ছবির প্রিমিয়ারে অংশ নেবেন। এমনটাই বলছিলেন চিত্রনায়ক নিরব।

তিনি আরো বলেন, পাঁচ বছর আগে বাংলাদেশের একজন ফটোসাংবাদিকের মাধ্যমে মালয়েশিয়ার চলচ্চিত্র নির্মাণ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ হয়। ওই ফটোসাংবাদিকের কাছ থেকে ছবি দেখে আমার ব্যাপারে তারা আগ্রহী হয়। সেখানে পরিচালকও ছিলেন। এরপর তাঁদের সঙ্গে আলোচনা হয়। তাঁরা ছবির জন্য আমাকে নির্বাচিত করেন।

নিরব আরো জানান, ‘বাংলাশিয়া’ সিনেমায় তাঁকে কখনো বাবুর্চি, কখনো মোটর মেকানিকস, আবার কখনো কোনো প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী হিসেবে দেখা যাবে। তাঁর মতে, ‘এটি চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে অন্যতম একটা অর্জন। এমন একটি ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ না পেলে বড় অর্জন থেকে বঞ্চিত হতাম।’ ছবিটি মুক্তির পর নিজের আলাদা গ্রহণযোগ্যতা তৈরি হতে পারে বলে মনে করছেন নিরব।

তিনি বলেন, এই সিনেমার পরিচালক মালয়েশিয়ায় খুব জনপ্রিয়। রাস্তায় শুটিং করার সময় ভিড় লেগে যেত। হিমশিম খেতে হতো পুরো ইউনিটকে।

‘বাংলাশিয়া’ সিনেমায় নিরবের বিপরীতে অভিনয় করেছেন সিঙ্গাপুরের তারকা আতিকা সুহাইমি। এই ছবির পরিচালক নেমউই গানের সঙ্গেও যুক্ত। তিনি এর আগে পাঁচটি সিনেমা পরিচালনা করেছেন। ছবির অন্য চরিত্রের অভিনয়শিল্পীরা হলেন সাইফুল অ্যাপেক, নেমইউ, ডেভিড।

এই সিনেমায় নিরবের কাজ করার অভিজ্ঞতা অসাধারণ। বললেন, ‘এই সিনেমার ইউনিটে কাজ করতে গিয়ে আমাকে সবচেয়ে বেশি মুগ্ধ করেছে তাদের সময়জ্ঞান। আমরা প্রতিদিন ভোর চারটায় শুটিং শুরু করতাম। ৪২ দিন কাজ করেছি, কখনো এই নিয়মের নড়চড় হয়নি।

নিরব ছবিটি নিষিদ্ধ হওয়ার কারন সম্পর্কে নিরব বলেন, পুরো ঘটনাটা এখনই খোলাসা করতে চাই না। তবে এটুকু বলব, ছবিতে এমন কিছু বিষয় তুলে ধরা হয়েছিল, যা মালয়েশিয়ার সরকারের বিপক্ষে যায়। তাই সরকার ছবিটির ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। শুনেছি, ছবিটি থেকে ৩১টি দৃশ্য বাদ দিতে হয়েছে। সবকিছুর পর গল্পকে ঠিক রেখে পরিচালক ছবিটি মুক্তি দিচ্ছেন। ছবির শেষে বিশ্ববাসীর প্রতি সম্প্রীতির আহ্বান জানানো হয়েছে।

ছবিতে মালয় ভাষায় সংলাপ বলেছেন নিরব। বললেন, আমার সঙ্গে সার্বক্ষণিক একজন দোভাষী দেওয়া হয়। তিনি আমাকে ভাষা বলার ক্ষেত্রে খুব সহযোগিতা করেছেন। সব মিলিয়ে এই ছবি আমার জীবনের অসাধারণ একটা অভিজ্ঞতা হয়ে থাকবে।

‘বাংলাশিয়া’ সিনেমায় কাজ করেছেন সিঙ্গাপুরের আতিকা সুহাইমি ও বাংলাদেশের নিরব। নিরব বর্তমানে তিনি রফিক শিকদারের ‘হৃদয়জুড়ে’ সিনেমার শেষ পর্যায়ের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন