খেলা

রোমাঞ্চের শেষটা জিতলেন পাকিস্তান!

এখন পর্যন্ত এশিয়া কাপের সবচেয়ে রোমাঞ্চকর ম্যাচ উপহার দিয়েছে পাকিস্তান-আফগানিস্তান। শুক্রবার আবুধাবি স্টেডিয়ামে সেই রোমাঞ্চের শেষটা জিতেছে পাকিস্তান। তিন বল হাতে থাকতে জিতেছে ৩ উইকেটে।

এশিয়া কাপে নিজেদের তিন ম্যাচেই দারুণ ধারাবাহিক ক্রিকেট খেলেছে আফগানিস্তান। ভালো রান সংগ্রহ করে শ্রীলংকা এবং বাংলাদেশকে গ্রুপ পর্বে হারিয়েছে তারা। এরপর সুপার ফোরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষেও করে ভালো সংগ্রহ। জয়ের জন্য সরফরাজের দলের সামনে দাঁড় করায় ২৫৮ রান।

সুপার ফোরের প্রথম ম্যাচে দুবাইয়ে ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামে বাংলাদেশ। তাতে সহজ জয় পায় ভারত। কিন্তু আফগানরা ম্যাচটা জমিয়ে ফেলে। শেষ পাঁচ ওভারে ৪২ রানের সমীকরণ দাঁড় করায় তারা। পাকিস্তানের হাতে ৪ উইকেট। এরপর শেষ চার ওভারে দরকার ছিল ৩৯ রান। এমনকি শেষ ওভারে ১০ রান পর্যন্ত ছিল আফগানদের হাতে। কিন্তু শোয়েব মালিক অপরাজিত ৫১ রানের ইনিংস খেলে ম্যাচ বের করে নিয়ে যান।

আবুধাবিতে টস জিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ব্যাটে নামে আফগানরা। শুরুতে দুই উইকেট হারালেও তারা চাপ সামলে নেয়। রহমত শাহ এবং হাসমতউল্লাহ শাহেদি তৃতীয় উইকেট জুটিতে যোগ করেন ৬৩ রান। এরপর রহমত শাহ ৩৬ রানে ফিরলেও ৯৭ রানের হার না মানা এক ইনিংস খেলেন হাসমতউল্লাহ শাহেদি। অধিনায়ক আসগর আফগান করেন ৫৬ বলে ৬৭ রান। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেটে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ২৫৭ রান তোলে আসগররা।

জবাবে স্কোরবোর্ডে কোন রান না জমা করেই ফিরে যান ফখর জামান। সেখান থেকে ১৫৪ রানের জুটি গড়েন বাবর আজম এবং ইমাম উল হক। বাবর ফেরেন ৬৬ রানে। ইমাম উল করেন ৮০ রান। ১৫৪ রানে দুই উইকেট হারানো পাকিস্তান ১৯৪ রানে হারায় ৪ উইকেট। এরপর ২১৬ রানে হারায় পঞ্চম উইকেট। কিন্তু এক পাশ আগলে থাকেন শোয়েব মালিক। তিনিই শেষ পর্যন্ত দলকে ৩ উইকেটের জয় এনে দেন।

পাকিস্তানের হয়ে এ ম্যাচে মোহাম্মদ নওয়াজ ৫৭ রানে ৩ উইকেট পান। শাহিন আফ্রিদি পান ২ উইকেট। আফগানদের হয়ে মুজিব উর ২টি এবং রশিদ খান ৩ উইকেট পান।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন