সারাদেশ

২৬০০ টাকার জন্য গৃহবধূকে হত্যার পর লাশ গুম

টাঙ্গাইলের বাসাইলে ২৬০০ টাকা চাইতে গিয়ে খুন হলেন এক গৃহবধূ। হত্যার পর লাশ গুম করতে তাকে ঘরের ভেতর মাটিচাপা দিয়ে রাখা হয়।

বাসাইল থানার ওসি আনিচুর রহমান জানান, বাসাইলের রায়বাড়ির সুনিল দাসের স্ত্রী ঝর্না রানী দাস বেপারীপাড়ার সাহাদতের স্ত্রী মনোয়ারা বেগমের কাছে ব্যবসা-সংক্রান্ত ২৬০০ টাকা পান। রোববার সকালে পাওনা টাকা চাইতে যান ঝর্না রানী দাস। কৌশলে ঘরের ভেতর নিয়ে মনোয়ারা ও তার আত্মীয় উজ্জ্বল ইসলাম শ্বাসরোধ করে ঝর্না রানীকে হত্যার পর ওই ঘরেই মাটিচাপা দিয়ে রাখে।

তার আগে ঝর্নার পরনে থাকা স্বর্ণালংকার খুলে তা স্থানীয় বাজারে ২৫ হাজার টাকায় বিক্রি করে। ঝর্না বাড়িতে ফিরে না আসায় তার পরিবারের সদস্যরা বারবার মনোয়ারার বাড়িতে খবর নেন। প্রতিবারই তাদের বলে দেয়া হয় তিনি ওই বাড়িতে আসেননি। পরে বাধ্য হয়ে নিহত ঝর্নার পরিবার থানায় গিয়ে বিষয়টি জানায়।

রাত ১২টার দিকে পুলিশ মনোয়ারারে ঘরের মাটি খুঁড়ে নিহত ঝর্নার লাশ উদ্ধার করে। সোমবার সকালে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ মনোয়ারা বেগম ও উজ্জল ইসলামকে গ্রেফতার করেছে।

নিহতের স্বামী সুনিল কুমার দাস বাদী হয়ে দুইজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

 

দেশরির্পোট/আজমল


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন