জাতীয়

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পরিবর্তন দাবি ড. কামালের

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) পরিবর্তন দাবি করে বিশ্বাসযোগ্য কাউকে এ পদে বসানোর আহ্বান জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষনেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের মূল কাজ হলো নির্বাচনের সুন্দর পরিবেশ তৈরি করা। কিন্তু কমিশন এখনও সেই পরিবেশ তৈরি করতে পারেনি। প্রেসক্লাব গণফোরামের সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি।

ড. কামাল বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ইভিএম দিয়ে আবার প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। কারণ এটি রিলায়েবল (বিশ্বাসযোগ্য) না। ইভিএমে এক প্রতীকে ভোট দিলে অনেক সময় সেটা অন্যটায় চলে যায়। তাৎক্ষণিকভাবে সেটা সনাক্ত করাও সম্ভব নয়।  এসব কারণে আমরা বেশিরভাগ দল কিন্তু এটার বিপক্ষে কথা বলে আসছি।

সংবাদ সম্মেলনে এর আগে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গণফোরামের  নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী। এতে তিনি বলেন, গণভবন, মন্ত্রীদের বাসভবন, সরকারি অফিস রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে ব্যবহার করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘণ হওয়া সত্ত্বেও নির্বাচন কমিশন নীরব ভূমিকা পালন করছে।

সুব্রত চৌধুরী বলেন, নির্বাচনকালে দেশের প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নির্বাচন কমিশনের পুরোপুরি কর্তৃত্বের মধ্যে থাকে। কিন্তু  প্রশাসনিক কর্মকর্তা, নির্বাচনী কর্মকর্তা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা আইন বহির্ভূতভাবে নির্বাচনে অংশ নেওয়া বিরোধী পক্ষের ওপর হামলা-মামলা, গ্রেফতার ও বাড়িঘর তল্লাশি অব্যাহত রেখেছে। এমনকি নির্বাচনে যারা প্রার্থী হবেন তাদেরও উচ্চ পর্যায়ের নির্দেশে গ্রেফতার করা হচ্ছে।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, সরকারি দলের প্রার্থী এমপি-মন্ত্রীরা দাপটের সঙ্গে নির্বাচনী প্রচার চালাচ্ছেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসন তাদের প্রটোকলসহ সার্বিক সহযোগিতা করছে। অন্যদিকে বিরোধীদলীয় প্রার্থীদের প্রচারণায় বাধা সৃষ্টি করা হচ্ছে। নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় তাদের কর্মীদের ঘরোয়া বৈঠক, সভা-সমাবেশেও বাধা দেওয়া হচ্ছে।

 

সিএসবি


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন