খেলা

মাহমুদউল্লাহর ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস

মিরপুর টেস্টের প্রথম ইনিংসে অল আউট হওয়ার আগে স্কোর বোর্ডে ৫০৮ রান জমা করেছে বাংলাদেশ। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ খেলেছেন ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। নিজের তৃতীয় টেস্ট সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন তিনি। ১৩৬ রান করেন মাহমুদউল্লাহ।

টেস্টে এনিয়ে ৯ম বারের মতো বাংলাদেশের কোনো ইনিংসে পাঁচশ ছাড়ানো স্কোর গড়ল। সর্বশেষ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টের প্রথম ইনিংসে পাঁচশ পেরিয়েছিল বাংলাদেশ।

আগের দিনের ৫ উইকেটে ২৫৯ রান নিয়ে নতুন খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। সাকিব ও মাহমুদউল্লাহ শুরুটা করেন দুর্দান্ত। ষষ্ঠ উইকেটে শতরান পূরণ করে ফেলে এই জুটি। ১৯০ রানে ৫ উইকেট হারানোর পর এই দুজনের ব্যাটেই আগের দিন ঘুড়ে দাঁড়ায় বাংলাদেশ।

এদিন সকালে শুরু থেকেই মারমুখী ছিলেন সাকিব। শটস খেলার চেস্টা করেছেন অনেক বেশি। ব্যক্তিগত ৮০ রান করে কাটা পড়েন তিনি অতিরিক্ত শটস খেলতে গিয়েই। কেমার রোচের বলে গালিতে শাই হোপের হাতে ধরা পড়েন সাকিব। সাকিবের ১৩৯ বলের ইনিংসে ছিল ৬টি চার।

সাকিব বিদায় নিলেও সপ্তম উইকেটে আরেকটি দুর্দান্ত জুটি পায় বাংলাদেশ। এবার মাহমুদউল্লাহর সঙ্গী লিটন দাস। ম্যাচের আগে মুশফিক আঙুলে চোট পাওয়ায় বিকল্প উইকেটরক্ষক হিসেবে ডাক পেয়েছিলেন লিটন।

জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর ব্যর্থতার দায়ে বাদ পড়লেও এম্যাচে সুযোগ পেয়েই লিটন খেললেন ফিফটি’র ইনিংস। ক্যারিয়ারের চতুর্থ ফিফটি তুলে নিয়ে ৫৪ রান করে ফিরেন লিটন। তার ৬২ বলের ইনিংসে ছিল ৮টি চার ও ১ ছক্কা।

তবে লিটন উইকেট বিলিয়ে দিয়ে ফিরেছেন। ব্র্যাথওয়েটের বলে রিভার সুইপ খেলতে গিয়ে বোল্ড হন তিনি।

এরপর মেহেদী হাসান মিরাজ কিছুটা সঙ্গ দেন মাহমুদউল্লাহকে। তাতে বাংলাদেশের ইনিংস এগিয়েছে। মাহমুদউল্লাহও এগিয়ে গেছেন সেঞ্চুরির দিকে। মিরাজ অবশ্য ১৮ রানে ফিরে যান ওয়ারিকনের বলে। ৪১৬ রানে অষ্টম উইকেট হারায় টাইগাররা।

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ সঙ্গীর অভাবে সেঞ্চুরি পাবেন কিনা সেই শঙ্কা তখন জেঁকে বসেছিল। তবে দশম ব্যাটসম্যান হিসেবে ব্যাটিংয়ে নেমে দুর্দান্ত খেলেন তাইজুল ইসলাম। মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে নবম উইকেটে গড়েন ৫৬ রানের জুটি।

এই জুটিতেই তৃতীয় সেঞ্চুরি তুলে নেন মাহমদউল্লাহ। ২০৩ বলে এই মাইলফলক স্পর্শ করেন মাহমুদউল্লাহ। রোস্টন চেজকে চার হাঁকিয়ে তিন অংকের কোটায় পৌছান এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। তার আগে প্রমাণ দিলেন টেস্ট সুভল ব্যাটিং মানসিকতার।

মাহমুদউল্লাহর সেঞ্চুরির পর চা বিরতিতে গিয়েছিল বাংলাদেশ। বিরতি থেকে ফিরে তাইজুল প্যাভিলিয়নে ফিরেন ব্যক্তিগত ২৬ রান করে।

এরপর শেষ উইকেটে নাঈম হাসানকে নিয়ে ফের জুটি মাহমুদউল্লাহর। ৩৬ রান যোগ করেন এই দুজন। ক্যারিয়ার সেরা ১৩৬ রান করে মাহমুদউল্লাহ ক্যারিবীয়দের দশম শিকার হন। ওয়ারিকনের বলে বোল্ড হন মাহমদউল্লাহ। নাঈম ১২ রানে অপরাজিত থেকে যান।

ক্যারিবীয়দের পক্ষে কেমার রোচ, জোমেল ওয়ারিকান, দেবেন্দ্র বিশু ও ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ২টি করে উইকেট নেন। ১টি করে উইকেট পেয়েছেন ইভিন লুইস ও রোস্টন চেজ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস : ৫০৮ (১৫৪ ওভার) (সাদমান ৭৬, সৌম্য ১৯, মুমিনুল ২৯, মিঠুন ২৯, সাকিব ৮০, মুশফিক ১৪, মাহমুদউল্লাহ ১৩৬, লিটন ৫৪, মিরাজ ১৮, তাইজুল ২৬, নাঈম ১২*)।

 

 

সিএসজি


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন