বিনোদন

মান্না ভাইয়ের মৃত্যুর পর শাকিব খানের সঙ্গেও হিট ছবি করেছি : একা

একসময় অভিনয় দিয়ে বাংলা চলচ্চিত্রে বেশ সাড়া ফেলেছিলেন নায়িকা একা। জনপ্রিয় পরিচালক কাজী হায়াতের ‘তেজী’ এবং ‘ধর’সহ বেশ কয়েকটি ছবিতে প্রয়াত জনপ্রিয় নায়ক মান্নার বিপরীতে দেখা গিয়েছিল তাকে। টানা ২০-২৫টির মতো ছবি মুক্তি পায় তার। সে সময় এ জুটিকে লুফে নিয়েছিলো সিনেমার দর্শক। অভিনয় করেছেন তিনি নায়ক রুবেলের বিপরীতে ‘বাবা কেন আসামি’ ছবিতেও। এখানেও নজর কাড়তে সক্ষম হন। তবে নায়ক মান্নার সঙ্গেই একা ছিলেন। মান্নার মৃত্যুর পর একাধিক নায়কের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন। কিন্তু কারো সঙ্গেই নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। ফলাফল সিনেমা থেকে দূরে সরে যাওয়া। গত কয়েক বছর ধরেই তিনি অভিনয়ের বাইরে। ছোট-বড় কোনো পর্দাতেই তার দেখা নেই। হঠাৎ দেখা মিললো তাকে একটি রেষ্টুরেন্টে। সেখানে এ প্রতিবেদকের কথা হয় তার সাথে। জানালেন অনেক অজানা কথা।

দীর্ঘদিন সিনেমা থেকে আড়ালে থাকার কারণ জানাতে গিয়ে নায়িকা একা বলেন, বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে দেশ ছেড়ে বিদেশে চলে গিয়েছিলাম। সেখানে বরের সাথে ছিলাম। মাঝে আমার বাচ্চা হলো। স্বামী-সন্তান ও সংসার নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। তাই সিনেমার সঙ্গে গ্যাপটা তৈরি হলো।

এরপর ২০১২-১৩ সালে দেশে ফেরা হলেও তেমন কোনো কাজ করা হয়নি। তবে সম্প্রতি শোবিজে কিছু কাজও করেছি। সিনেমা বিষয়ক অনুষ্ঠান উপস্থাপনা, মডেলিং এবং নাটকে অভিনয় করছি। কাজ করছি বিজ্ঞাপনেও।

নিয়মিত থাকবেন? এই প্রশ্নের জবাবে একা জানান, কাজই তো নেই ইন্ডাস্ট্রিতে। যারা বর্তমানের ক্রেজ তারাই বেকার হয়ে আছে। সেখানে নিয়মিত কাজ কোথায়। তবে আমি যেহেতু আবারও ব্যাক করেছি তাই কিছু কাজ করছি।

২০১৮ সালেও কয়েকটা ছবির কাজ করেছি। ওই ছবিগুলো মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। এ বছরও একটা ছবির কাজ করবো। ফাঁকে ফাঁকে কিছু বিজ্ঞাপনেও কাজ করছি। এর মধ্যে কাসফি সুপার হোয়াইট ডিটারজেন্ট পাউডারের কাজ শেষ করলাম।

নায়ক মান্নার মৃত্যুতেই একার ক্যারিয়ার শেষ বলে মন্তব্য করেন সিনেমাপাড়ার অনেকেই। কিন্তু নায়িকা কী তা মনে করেন? এ বিষয়ে একা বলেন, ‘মান্না ভাই মারা যাওয়ার পরে কারো সাথেই তেমন করে কাজ করা হয়নি আমার। যেহেতু আমার বেশিরভাগ সিনেমা বাম্পার হিট হয়েছে মান্না ভাইয়ের সাথে তাই তার না থাকা আমার ক্যারিয়ারের জন্য কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব তো ফেলেছেই।

তবে চেষ্টা করেছিলাম আমি। অনেক ছবির অফার ছিলো। কিছু কাজ করেছিও বিভিন্ন নায়কদের সঙ্গে মান্না ভাইকে হারানোর পর। শাকিব খানের সাথেও ৮-১০টার মত ছবিতে কাজ করেছি। তখন কিন্তু সিনেমা হিট হতো। মানুষ সিনেমা দেখতো। এত ফ্লপ বাজার ছিলো না। যেগুলো একটু কম হিট করতো সেগুলো নিয়ে সমালোচনা হতো।

তো শাকিবের সঙ্গে ছবিগুলো কিন্তু হিট ছিলো। অন্য নায়কদের সঙ্গে ছবিগুলোও ভালো চলেছে। আবার অনেক ছবি করে রেখেছি যেগুলো এখনও মুক্তি পানি। অনেক ছবি আছে কাজ করেছি কিন্তু পরিচালক কাজ শেষ করেনি।

তাহলে তো মান্নার মৃত্যুর পরও আপনি বেশ ভালোই ব্যস্ত ছিলেন সিনেমায়। তবে সিনেমা ছাড়লেন কেন? উত্তরে একার মন্তব্য, ‘ওই সময়টাতে সিনেমায় অশ্লীলতা প্রবল আকার ধারন করে। সিনেমা থেকে সরে যেতে বাধ্য হই। আমার মতো আরও অনেক নায়িকাই সরে গেছেন। কেউ কেউ ফিরেছেন, কেউ কেউ এখনো আড়ালেই।

কিন্তু অনেকের মুখে শোনা যায় আপনি মাদক ব্যবসাসহ সব কিছু বিতর্কিত কাজের সাথে জড়িয়ে সিনেমা থেকে দূরে সরে যান? এই ধারনা মিথ্যে দাবি করে একা বলেন, ‘চলচ্চিত্রে যখন আমি কাজ করি তখন অনেক ভালো ভালো ছবিতে কাজ করছিলাম। ঠিক তখন অন্য প্রযোজক-পরিচালকরা আমাকে দিয়ে তাদের সিনেমায় কাজ করার কথা বলেন। আমার গল্প পছন্দ না হওয়ায় তাদের কাজ করতাম না।

তাদের ছবি ফিরিয়ে দেয়ায় আমার উপর জেদ করে তারা আমাকে খারাপ মেয়ে হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু এটা তো ঠিক নয়। আমি অশ্লীল নায়িকা, মাদক ব্যবসায়ী ইত্যাদি ইত্যাদি বানিয়েছে। আমি এর কোনোটাই করিনি।

প্রচলিত আছে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে মাদক ব্যবসায়ের দায় নিয়ে দেশ ছেড়েছিলেন একা। এর জবাবেও একা জানান তিনি নোংরা রাজনীতির শিকার হয়েছেন। একার ভাষ্য, ‘সেসময় আসলে আমি ‘ব্যাড পলিটিক্স’র শিকার হয়েছিলাম। যার কারণে কোনো উপায় না পেয়ে দেশ ছেড়েছিলাম।

একটা কথা বলতে চাই, অনেকেই আজ ফিল্ম থেকে সরে গেছেন মিথ্যা অপপ্রচারের জন্য। যে যা নয় তার উপর সেটা জোর করে চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। ক্ষমতাধর প্রযোজক-পরিচালকদের জন্য অনেক জনপ্রিয় নায়িকারা চলচ্চিত্র থেকে সরে গেছেন।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন