বিনোদন

‘টেলিভিশনের নায়ক-নায়িকারা ও চলছেন প্যাকেজ হিসাবে’

বছর কয়েক ধরেই যে সিন্ডিকেট ছিল, সেটা এখন তা প্রবল হয়ে উঠছে নাটকে। এই জুটি প্রথার নামে  বিপাকে পড়ছেন নির্মাতারা। আগে সিনেমায় যেমন সুপারস্টার বলে দেয় এই নায়িকা নিবেন কিংবা এই নায়ক আমার চাই। এবার সেই ধারা চলছে বাংলা নাটকেও। গল্প কি সেটা বিষয় না, নায়ক নায়িকারা চলছেন প্যাকেজ হিসাবে। অভিযোগ রয়েছে, আফরান নিশোর যেমন এখন তানজিন তিশা ছাড়া চলেই না, তেমনি আবার দেখা যাচ্ছে অপূর্বর জুটি মেহজাবিন।

ঈদুল ফিতরে দেখা গেছে বেশি সংখ্যাক নাটকেই মেহজাবিনের সংঙ্গে টিভির এ সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা অপূর্ব তার নায়ক। যদিও নিশোর সঙ্গেও দর্শক পছন্দ করে মেহজাবিনকে। তবে নিশোর আবার জুটি হয়েছেন তিশার সঙ্গে। তাদের প্রেমের গুঞ্জনও রয়েছে,, সে কথা না হয় না বলি। প্রশ্ন হলো এসব কি দর্শক চায়? দর্শক কতটা চায়? নির্মাতারাই জুটি তৈরী করেন। কিন্তু সেই জুটি যে বছরের পর বছর চলে, তা কি দর্শক চায়? বর্তমানে বাংলাদেশের টিভি নাটক অপছন্দ করার অন্যতম। প্রধান কারণ এই জুটি প্রথা। গল্পের যেমন ভিন্নতা থাকে না। তেমনি একই শিল্পী দেখে যারপরনাই বিরক্ত দর্শক।

এদিকে পরিচালকরা অভিযোগ করছেন, যদি আমার চরিত্রটার জন্য নিশোকে দরকার হয়। সেই গল্পে যেমন আমার মেহজাবিন বা তানজিন তিশাকে নাও পছন্দ হতে পারে। কিন্তু এর বাইরে নেওয়া পসিবল হয় না। তাছাড়া অনেকে এখন জুটি হয়ে পারিশ্রমিকও নির্ধারণ করেন।

যদিও এর আগে বেশ কিছুদিন মোশাররফ করিম ও জুই দম্পতি এভাবে প্যাকেজ হয়ে নাটকে অভিনয় করেতেন। দুজনে নির্দিষ্ট পরিমাণ পারিশ্রমিক ও নিতেন।

অন্যদিকে পরিচালকরাও তৈরী করছেন এই সিন্ডিকেট। বিশেষ কয়েকজন পরিচালকরা আগেই সময়ের সেরাদের শিডিউল নিয়ে নেন। তারপর তারা একলটে একাধিক কাজ করেন। তাইতো সকলের পক্ষে অপূর্ব, নিশোকে কিংবা মেহজাবিনদের নিয়ে কাজ করা সম্ভব হয় না। এরমধ্যে অনেক পরিচালক আছেন নিজের ঘরের অভিনয়শিল্পী ছাড়া কাজ করেন না। অনেক পরিচালকের নাটক ওই নিদিষ্ট চ্যানেলেই চলবে।

 


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন