বিনোদন

নির্বাচন করার কারণ দর্শাবে, নাকি অভিষেক করবে?

অভিনয় শিল্পী সংঘের নতুন কমিটিকে নিয়ে অনেকের মনে নানা প্রশ্ন । সদ্য নির্বাচিত শিল্পিরা কি এখন আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে নির্বাচন করার কারণ দর্শাবে, নাকি সামনে নতুন কমিটির অভিষেক করবে? এমন উভয় সঙ্কট মোকাবেলায় আছে নতুন কমিটি।

এর আগে ২১ জুন নির্বাচন হয় অভিনয় শিল্পী সংঘের। ২৪ জুন নির্বাচিতরা চুপিচাপি শপথগ্রহণ করেন। তারপর তারা আগামী ২৮ জুন শুক্রবার আনুষ্ঠানিক অভিষেক হবে বলে জানিয়েছিলেন নতুন এই কমিটি। এরমধ্যে চলে আসে আদালত থেকে নোটিশ , নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে নির্বাচন করায় অভিনয় শিল্পী সংঘকে কারণ দর্শানো দেখানো হয়। তার উপর নবনির্বাচিত কমিটির কার্যক্রমের ওপর অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা চেয়ে ২৩ জুন আদালতে অভিযোগ করেন শেখ মো. এহসানুর রহমান, আবদুল্লাহ রানা ও নূর মুহাম্মদ রাজ্য।

এতে সংগঠনের সাবেক সভাপতিকে প্রধান করে, নির্বাচন পরিচালনা কমিটির ৬ জন, জেলা সমাজকল্যাণ অফিসের উপ-পরিচালকসহ মোট আটজনকে বিবাদী করা হয়। যার মামলা নং- ২২০ (২০১৯)। বিবাদীরা হলেন শিল্পী সংঘের বিদায়ী কমিটির সভাপতি শহিদুল আলম সাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম, সদ্য অনুষ্ঠিত হওয়া প্রধান নির্বাচন কমিশনার খায়রুল আলম সবুজ, নির্বাচন কমিশনার মাসুম আজিজ ও বৃন্দাবন দাস। নির্বাচন সহযোগি কেএস ফিরোজ, লাকী ইনাম ও নরেশ ভূইয়া। এছাড়া সমাজসেবা অধিদফতরের উপ-পরিচালক রকনুল হককে কোর্ট অর্ডার ছাড়াও ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য আলাদা করে আবেদন করেছেন।

উল্লেখ্য, অভিনয় শিল্পী সংঘের কিছু অনিয়মের অভিযোগ এনে গত ১৯ জুন ঢাকার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে তিনজন বাদী হয়ে নির্বাচন স্থগিতের আবেদন করেন। আদালত অভিযোগের প্রেক্ষিতে নির্বাচনে স্থগিতাদেশ দিয়ে কেন নির্বাচন বন্ধে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করা হবে না জানতে চেয়ে ৭ দিনের মধ্যে জবাব চেয়ে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।

কথা হয় অভিনয় শিল্পী সংঘের সাবেক ও নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিমের সাথে তিনি বলেন, আমরা অবশ্যই আদালতের কাছে আমাদের কারণ দর্শাবো সময়মতো। সেই সাথে আমাদের অভিষেক অনুষ্ঠানও চালিয়ে যাব। কারণ কতিপয় ব্যক্তি আমাদের সংগঠনটাকে ধ্বংশের পাঁয়তারা করতেছে। আমরা এটা রুখবো এবং তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেব সাংগঠনিকভাবেই।

তিনি আরো বলেন, সংগঠনে অনিয়ম থাকলে সদস্যদের স্বতস্বফূর্ত অংশগ্রহণে এমন অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতো না। সেই সাথে নির্বাচনে প্রায় ৮০ ভাগ ভোট কাস্ট হতো না।

আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে গত ২১ জুন শুক্রবার বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সঙ্গীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে অভিনয় শিল্পী সংঘের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সভাপতি পদে অভিনেতা শহীদুজ্জামান সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব নাসিমসহ ২১ সদস্যের কমিটি নির্বাচিত হয়।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন