বিনোদন

৪র্থ বাংলা চলচ্চিত্র উৎসব ডালাস ২০১৯-এ বয়াতির “টিয়ার গপ্পো”

‘বিশ্বের আঙিনায় বাংলা ছবি’ এই প্রতিবাদ্য নিয়ে প্রতিবছরের ন্যায় এ বছরও সৃজনের হাট আয়োজন করছে ৪র্থ বাংলা চলচ্চিত্র উৎসব ডালাস ২০১৯। আগামী ২,৩, ও ৪ আগষ্ট এঞ্জেলিকা ফিল্ম সেন্টার,আমেরিকায় এ উৎসব অনুষ্ঠিত হবে। উৎসবে ভারত ও বাংলাদেশের ৮টি স্বল্পদৈর্ঘ্য ও পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।

আন্না পুনমের ছোটগল্প অবলম্বনে সোহেল রানা বয়াতি নির্মিত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র “টিয়ার গপ্পো” এ উৎসবে অংশগ্রহন করছে। ধর্ষণ এবং যৌন হয়রানির মনস্ত্বাত্তিক বিষয়বস্তুকে কেন্দ্র করে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে।

সোহেল রানা বয়াতি বলেন, সমাজের প্রতিটি মানুষ ধর্ষণের সাথে প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ বা মানসিক ভাবে জড়িত। যখন দেখি ছোট শিশু যৌন নির্যাতনের হাত থেকে রেহাই পায় না তখন নিজেকে অপরাধী মনে হয় অথচ আমাদের সবার সন্মিলিত প্রচেষ্টা পারে এই ব্যাধি দূর করতে। আমি টিয়ার জবানবন্দিতে ধর্ষিতার না বলা কথাগুলো তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।এধরনের উৎসব ভিন্নধারার চলচ্চিত্রের জন্য খুবই দরকার কারন বিভিন্ন দেশে বসবাসরত বাংলা ভাষাভাষী মানুষের মধ্যে চলচ্চিতগুলো মেলবন্ধন তৈরি করে।

বাংলাদেশের নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু’র আলফা,আবদুল্লাহ মোহম্মদ সাদ’র ‘লাইভ ফ্রম ঢাকা’এবং এস এম কামরুল আহসান লেনিন’র ‘ঘ্রাণ’ এছাড়া ভারতের আহারে,ফার্নিচার,পুপা ও প্রসারিণী।

উৎসব সমন্বয়ক তারেক ইয়াসিন উজ্জ্বল বলেন, বাংলা চলচ্চিত্রকে এগিয়ে নেয়ার জন্য সকল বাঙালির যার যার অবস্থান থেকে কাজ করা উচিৎ,তাই সৃজনের হাট প্রতিবছর ৩ দিনব্যাপী এ উৎসব আয়োজন করে সামনে আরো বড় কলেবরে আয়োজনের পরিকল্পনা আছে।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন