বিনোদন

পাকিস্তানি ‘লাক্স স্টাইল অ্যাওয়ার্ড’র লালগালিচায় শবনম

রোববার (৭ জুলাই) ‘লাক্স স্টাইল অ্যাওয়ার্ড’-এর (এলএসঅ্যা) ১৭তম আসর বসেছিল পাকিস্তানের করাচি এক্সপ্রো সেন্টারে । সেখানে উপস্থিত হয়েছিলো ললিউডের (লাহোর) নামি-দামি তারকারা। যেমন- মাহিরা খান, বিলাল আশরাফ, মরিয়ম মুসতেহসান, আতিফ আসলাম, ফয়সাল কুরেসি, ইকরা আজিজ, ইয়াসির হুসেইন, আলি সাফিনাসহ পাকিস্তানের জনপ্রিয় তারকা।

মূল অনুষ্ঠান শুরু আগে লালগালিচায় পা মাড়াতে দেখা গেছে পাকিস্তানি তারকাদের। আর সেখানেই দেখা গেছে- বাংলাদেশের অভিনেত্রী শবনমকে। কালো কাতান শাড়ি, খোপায় বেশি ফুল, গলায় নেকলেস, হাতে চুড়ি, ঠোঁটে লাল লিপস্টিক দিয়ে ‘লাক্স স্টাইল অ্যাওয়ার্ড’-এর লালগালিচায় হেঁটেছেন তিনি।

১৯৪২ সালের ১৭ আগস্ট ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেছেন শবনম। তার আসল নাম ঝর্ণা বাসাক। ১৯৬১ সালে বাংলা চলচ্চিত্র ‘হারানো দিনের’ মাধ্যমে নায়িকা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেন শবনম। ১৯৬২ সালে উর্দু চলচ্চিত্র ‘চান্দা’ ছবির মাধ্যমে পাকিস্তানে রাতারাতি তারকাখ্যাতি পান। তবে এ দু’টি ছবিই তৎকালীন পূর্ব-পাকিস্তানের (বর্তমান বাংলাদেশ) ঢাকা থেকে মুক্তি পেয়েছিল। ৬০ দশকের মাঝামাঝি সময়ে শবনম পাকিস্তানের জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের একজন হয়ে উঠেন। পরে ১৯৬৮ সালে পাকিস্তানের করাচিতে স্থায়ীভাবে বাস শুরু করেন তিনি।

৭০ দশকের শুরুতে শবনম ললিউডে (লাহোর) পাকিস্তানের ইতিহাসে সবচেয়ে জনপ্রিয় নায়িকা হিসেবে নিজের স্থান পাকাপোক্ত করেন। বলা হয়ে থাকে- শবনম একমাত্র চলচ্চিত্র অভিনেত্রী যিনি ১৯৬০-এর দশক থেকে ১৯৮০-এর দশক পর্যন্ত তিন দশক ধারাবাহিক ও সফলভাবে রোমান্টিক চরিত্রে অভিনয় করে অগণিত দর্শক-শ্রোতার মন জয় করেছিলেন।

১৯৮৮ সালে শবনম তার চরিত্র পরিবর্তন করেন এবং পুনরায় ঢাকার চলচ্চিত্রাঙ্গনে অভিনয় করতে থাকেন। ৪০ বৎসরের অভিনয় জীবনে তিনি প্রায় ১৮০টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করে অবিস্মরণীয় হয়ে আছেন।

শবনম পাকিস্তানের সম্মানসূচক নিগার পুরস্কারের পাশাপাশি তিনবার দেশটির জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৯৯ সালে কাজী হায়াতের পরিচালনায় ‘আম্মাজান’ ছবিতে তিনি সর্বশেষ অভিনয় করেন।

তার অভিনীত জনপ্রিয় বাংলা চলচ্চিত্রগুলো হলো- ‘আম্মাজান’, ‘চোর’, ‘জোয়ার ভাটা’, ‘জুলি’, ‘নবারুণ’, ‘নাচঘর’, ‘রাজা সন্ন্যাসী’, ‘রাজধানীর বুকে’সহ প্রমুখ।

 


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন