বিনোদন

৩৯ পা রাখলেন পূর্ণিমা

বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় ও আলোচিত নায়িকাদের অন্যতম পূর্ণিমা। সৌন্দর্য, অভিনয় ও ব্যক্তিত্ব দিয়ে নিজেকে তিনি নিয়ে গেছেন সেরাদের তালিকায়। আজ আজ ১১ই জুলাই সেই মিষ্টি নায়িকার জন্মদিন। ৩৮ পেরিয়ে পা রাখলেন ৩৯ বছরে। এই বয়সটা তার কাছে কেবলই একটা সংখ্যা। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তার সৌন্দর্য যেন দিন দিন বাড়ছে। এই বয়সেও কীভাবে তিনি এমন সৌন্দর্য ধরে রেখেছেন, তা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয় সোশ্যাল মিডিয়াসহ নানা মাধ্যমে।

পূর্ণিমা ১৯৮১ সালে আজকের এই দিনে চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। বাংলা চলচ্চিত্রের এই গ্ল্যমারাস অভিনেত্রীর জন্মদিনে দেশরিপোর্ট পরিবারের পক্ষ থেকে জানাই শুভেচ্ছা এবং আগামীর দিনগুলির জন্য শুভ কামনা। নায়িকা শাবনূর, মৌসুমির পর পূর্ণিমাই পেরেছিলেন সুস্থ ধারার সিনেমায় নিজেকে নির্ভরযোগ্য ও জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে। তার এ অভিনয় ক্যারিয়ারে শতাধিক দর্শকনন্দিত ছবি উপহার দিয়েছেন ।

শুধু বড় পর্দা নয় ছোট পর্দায়ও অর্থাৎ টিভি নাটক, বিজ্ঞাপনেও কাজ করেছেন দাপটের সঙ্গে । বিচারক হিসাবে ২০১২ সালে চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ের বিচারকের দ্বায়িত্ব পালন করেন। এছাড়াও চলতি বছরের গত ৫ই মে ২০১৭ অনুষ্ঠিত বাংলদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সদস্য পদে জয়লাভ করেন এ অভিনেত্রী এবং গত ১৫ মে চলচ্চিত্র জীবনের ২২ বছরে পা রাখেন এ গ্ল্যমারাস অভিনেত্রী। ‘শত্রু ঘায়েল’ নামের ছবিতে শিশুশিল্পী হিসেবে অভিনয় করলেও জাকির হোসেন রাজুর ‘এ জীবন তোমার আমার’ ছবির মধ্য দিয়ে নায়িকা পূর্ণিমার ক্যারিয়ার শুরু হয়।

১৯৯৮ সালে জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত এ ছবিতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন চিত্রনায়ক রিয়াজ। প্রথম ছবিতে তেমন একটা সফলতার দেখা না মিললেও আস্তে আস্তে নিজেকে চলচ্চিত্রের অন্যতম সেরা নায়িকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেন পূর্ণিমা। ‘মনের মাঝে তুমি’, ‘হৃদয়ের কথা’, ‘প্রেমের নাম বেদনা’, ‘ছোট্ট একটু ভালোবাসা’, ‘আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা’, ‘সুলতান’, ‘শাস্তি’, ‘শুভা’, ‘মেঘের পরে মেঘ’, ‘স্বামী-স্ত্রীর যুদ্ধ’, ‘পিতামাতার আমানত’, ‘মাটির ঠিকানা’, ‘সাথী তুমি কার’, ‘সবাই তো ভালোবাসা চায়’, ‘মায়ের জন্য পাগল’, ‘মাটির ঠিকানা’সহ অসংখ্য ভালোমানের ছবিতে অভিনয় করে প্রশংসিত হয়েছেন পূর্ণিমা।

কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘ওরা আমাকে ভালো হতে দিল না’ ছবির জন্য ২০১০ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে সেরা অভিনেত্রীর খ্যাতিও অর্জন করেন পূর্ণিমা। ব্যক্তিগত জীবনে পূর্ণিমার ডাকনাম রীতা। ২০০৭ সালের ৪ নভেম্বর পারিবারিকভাবে আহমেদ জামাল ফাহাদের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় তারকা অভিনেত্রী পূর্ণিমা। ২০১৪ সালের ১৩ এপ্রিল কন্যাসন্তানের মা হন এ অভিনেত্রী। তার একমাত্র মেয়ে সন্ধ্যা আরশিয়া উমায়জা। পূর্ণিমার পিতার নাম মোঃ হানিফ ও মাতার নাম সুফিয়া খাতুন। একমাত্র বোনের নাম রেখা। কাজের ব্যস্ততার পাশাপাশি বর্তমানে স্বামী ফাহাদ ও মেয়ে আরশিয়াকে নিয়েই কাটে নায়িকার দিন ও রাত।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন