বিনোদন

ঈদের নাটক নিয়ে ব্যস্ত ঊর্মিলা

ঈদ মানেই নতুন নাটক, বিনোদন অনুষ্ঠান। প্রতিটি চ্যানেলজুড়ে আড্ডাসহ থাকে নানা আয়োজন। বিনোদন জগতের তারকারাও ঈদের আগে যেন দম ফেলার ফুরসত পান না। তাদের ব্যস্ততা বেড়ে যায় কয়েক গুণ। বিশেষ করে নাটক পাড়ায় অভিনয়শিল্পী, নাট্যনির্মাতা, সেটের কলাকুশলী সবারই চেষ্টা থাকে সুন্দর নাটক, টেলিফিল্মের মাধ্যমে দর্শকদের ঈদের আনন্দ আরেকটু বাড়িয়ে দেয়ার। আর চ্যানেলগুলোতেও নতুন অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা নিয়ে চলে তোড়জোড়। কিন্তু এবারের পরিস্থিতি একেবারে ভিন্ন। কভিড-১৯ পাল্টে দিয়েছে সব বাস্তবতা। দেশে কভিড-১৯-এর প্রভাব পড়ে মার্চের শুরু থেকে। করোনাভাইরাস নিয়ে সতর্কতায় ২২ মার্চ থেকে বন্ধ থাকে সব ধরনের শুটিং।

কিন্তু বাসায় বসে আর কতদিন। করোনা ভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করেই চলতে হবে মানুষদের। তাই শুটিংও শুরু হয়েছে নাটক ও সিনেমার। লম্বা সময়ের বিরতি শেষে শুটিং শুরু হওয়াতে ক্যামরার সামনে দাড়াচ্ছেন তারকারা। সে তালিকায় রয়েছে রয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর।

সম্প্রতি তিনি কাজ শেষ করেছেন, রিংকু রাফাতের ‘বড় লোকের বেটি’, বর্ণ নাথের ‘সুক্কুর ইজ এ গুড বয়’, ‘আদিবাসী মিজানের ‘মেষ রাশি’, ‘চড়া তালুকদার’, মাহমুদুল হাসান রানার ‘ব্যাচেলর বাবু’, ‘তিন দৈত্য’, ও ‘মা মরলে বাপ তালই’ নাটকগুলো। তাছাড়া শনিবার থেকে শুরু করেছেন ‘রুমান রুনির ‘আব্বা’ । আরো কয়েকটি ঈদের নাটকের শিডিউল দিয়ে রাখছেন শীঘ্রই শুরু হবে।

ঊর্মিলা শ্রাবন্তী কর বলেন, ঈদের সময় কাজের ব্যস্ততা অনেকগুণ বেড়ে যায়। কিন্তু এবার ঈদে করোনার পরিস্থিতি খুব একটা বেশি না হলেও প্রত্যেকে কম-বেশি কাজ করছেন। করোনা ভাইরাসের জন্য শুটিং বন্ধ ছিলো এতোদিন। দীর্ঘদিন পর কাজে ফিরলাম। ঘরবন্দি জীবনে দম বন্ধ হয়ে আসছিল। কাজে ফিরে ভালো লাগছে। যতগুলোর শুটিং করেছি স্বাস্থ্যবিধি মেনেই করেছি।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন