খেলা

নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে উল্টো সার্ভ শারাপোভার

ডোপ পরীক্ষায় ব্যর্থ হয়েছিলেন জানুয়ারিতে। অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে। মার্চে প্রাথমিকভাবে বহিষ্কার হন। মাঝে রুশ টেনিস কর্তার মন্তব্যে তার টেনিস ক্যারিয়ার শেষ হয়ে গেল কি-না জল্পনায় শুরু হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত বুধবার মারিয়া শারাপোভাকে দু’বছর বহিষ্কার করলো আন্তর্জাতিক টেনিস ফেডারেশন।

সঙ্গে আরো একটা বিষয়ে ধোঁয়াশা কাটলো। শারাপোভা টেনিস ছাড়ছেন না। যত দ্রুত সম্ভব কোর্টে ফিরতে মরিয়া রাশিয়ান গ্ল্যামার কুইন। তাই শাস্তির বিরুদ্ধে কোর্ট অব আর্বিট্রেশনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন তিনি।

সোশ্যাল মিডিয়ায় শারাপোভা বলেছেন, ‘দু’বছরের সাসপেনশনের সঙ্গে আইটিএফ ট্রাইবুনাল এটাও যোগ করেছে আমি যা করেছি সেটা ইচ্ছাকৃত নয়। পারফরম্যান্স বাড়ানোর জন্য আমি যে এ সব করিনি সেটাও পরিষ্কার।’

সঙ্গে আইটিএফের উপর ক্ষোভ উগরে মাশা আরো বলেন, ‘আইটিএফ প্রচুর চেষ্টা করেছিল এটা প্রমাণ করতে যে, আমি ইচ্ছা করে ডোপ-বিরোধী নিয়ম ভেঙেছি। চেয়েছিল আমার চার বছর সাসপেনশন হোক। ট্রাইবুনাল কিন্তু মেনে নিয়েছে যা হয়েছে সেটা অনিচ্ছাকৃত।’

শারাপোভার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল নিষিদ্ধ ওযুধ মেলডোনিয়াম ব্যবহার করার। যা ১ জানুয়ারি ২০১৬ থেকে ওয়াডা নিষিদ্ধ করে দেয়। কিন্তু শারাপোভার যুক্তি ছিল তিনি এক দশক ধরে ওষুধটা খাচ্ছেন। রক্তের প্রবাহ বাড়াতে যা সাহায্য করে। জানতেন না ওষুধটা নিষিদ্ধ হয়ে গেছে। তবে দু’বছরের সাসপেনশনের শাস্তিও মেনে নিচ্ছেন না তিনি। ‘অন্যায়ভাবে চাপানো কড়া শাস্তি মানছি না। এর বিরুদ্ধে আমি কোর্ট অব আর্বিট্রেশনে আবেদন করবো,’ বলেছেন রুশ তারকা।

২৯ বছর বয়সী পাঁচবারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ীকে রাশিয়ার রিও অলিম্পিকসের দলে রাখা হয়েছিল। সঙ্গে এটাও বলা হয়েছিল তিনি না নামতে পারলে অলিম্পিকসে তার জায়গায় খেলবেন একাতেরিনা মাকারোভা। বিশ্ব র্যাঙ্কিংয়ে যিনি পাঁচ নম্বর। দু’বছর বহিষ্কারের শাস্তি যদি বজায় থাকে শারাপোভা রিওতে আর নামতে পারবেন না।


ফেসবুকের মাধ্যমে মন্তব্য করুন :

টি মন্তব্য
মন্তব্যে প্রকাশিত যেকোন কথা মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। DeshReport.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের কোন মিল নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নিবে না

আরো সংবাদ...

মন্তব্য করুন